রবিবার ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:১৩ পিএম


দুই ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের দায়ে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮:০৬, ২৯ অক্টোবর ২০১৯  

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা উপজেলায় একটি মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণীর দুইজন শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক ক্বারী শহীদুল ইসলামকে (৪৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদেরকে ‘আদরের নামে’ অস্বাভাবিকভাবে গায়ে হাত দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা উপজেলায় একটি মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণীর দুইজন শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক ক্বারী শহীদুল ইসলামকে (৪৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় সোমবার বিকেলে মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা আব্দুল হক বাদী হয়ে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

রোববার (২৭ অক্টোবর) রাতে ফতুল্লার কাশীপুর একটি মহিলা মাদ্রাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন। গ্রেফতার শহীদুল ইসলাম মাদ্রাসার পরিচালনার পাশাপাশি শিক্ষকতাও করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মাদ্রাসা শিক্ষক ক্বারী শহীদুল ইসলাম বিভিন্ন ক্লাসের ছাত্রীদের যৌন নিপীড়ন করে। এমনকি অস্বাভাবিক ভাবে গায়ে হাত দিয়ে আদর করে। শিশু বাচ্চারা অনেকে বিষয়টি স্বাভাবিক ভাবে নিলেও উঠতি বয়সের মেয়েরা বিষয়টি স্বাভাবিকভাবে নিতে পারে না। এজন্য রবিবার কয়েকজন শিক্ষার্থী একত্রিত হয়ে তাদের অভিভাবকদের ঘটনাটি অবগত করে। পরে ছাত্রীদের অভিভাবকরা একত্রিত হয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান এম সাইফউল্লাহ্ বাদলের কাছে বিচার দেন। পরে ছাত্রীদের মুখ থেকে ঘটনার বিস্তারিত শোনার পর পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান, ভুক্তভোগী ও তাদের পরিবারের উপস্থিতিতে মাদ্রাসার কর্তৃপক্ষকে হাজির করে মাদ্রাসার শিক্ষক ক্বারী শহীদুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

এ প্রসঙ্গে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন জানান, শিশু যৌন নিপীড়নের অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত মাদ্রাসার শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এডুকেশন বাংলা/একে

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর