মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ৭:২১ এএম


ছাত্ররা যখন খুনী হয়!

মোঃ নজরুল ইসলাম রনি

প্রকাশিত: ১৬:১৩, ৮ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৬:৩৪, ৮ অক্টোবর ২০১৯

এর দায় শিক্ষকরা কিন্তু এড়াতে পারেনা। এজন্য একজন শিক্ষক হিসেবে খুব মনোকষ্ট নিয়ে কিছু লেখার জন্য কলম নিলাম হাতে। জানিনা শেষ করতে পারবো কিনা! প্রসঙ্গ বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদের হত্যাকাণ্ড।বুয়েটের সবাই কিন্তু মেধাবী। এই মেধাবী ছাত্ররা কি নির্মম ভাবে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করল। বাবা মার একটি সম্ভাবনা ও স্বপ্নকে হত্যা করল। শিক্ষক হিসেবে আবরারের বাবা মাকে কি জবাব দিবো।

এ হত্যার পিছনে যা ই থাকুক না কেন মানবতা ও নৈতিকতা এবং আদর্শের যে অপমৃত্যু ঘটেছে তা কিন্তু শতভাগ সত্য। ছাত্রলীগের ছেলেরা হত্যা করেছে। কিন্তু এ ছাত্র কারা? শিশু থেকে আমরা পাঠদান করে বড় করেছি। মানুষ হত্যা মহাপাপ। এটা মনে হয় শেখাতে পারিনি।কত বই পড়ানো হলো। ভালো ভালো ফলাফল।শেষে লীগের কারণে কি সব শেষ? আজ মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সব জায়গায় কিন্তু আহাজারি। বেদনাহত পুরো জাতি। সবাই ছাত্রলীগকে দোষারোপ করছে। কিন্তু আমি নিজেকে দোষারোপ করছি যে ওদেরকে ভালো মানুষ বানাতে পারিনি। শিক্ষক হিসেবে আমরা পুরো ব্যর্থ।

বাংলাদেশে প্রথম ছাত্র হত্যা কান্ড শুরু করেছিল শিবির।চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে।সেদিন মৃত্যুর মুখোমুখি ছাত্রটি ওদের নিকট পানি খেতে চাইলে শিবিরের ছেলেরা নাকি ঐ আহত ছেলেটির মুখে পানির পরিবর্তে প্রস্রাব করে দিয়েছিল।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র হত্যা কান্ড অতীতেও ঘটেছে।কিন্তু এবার বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার হত্যা কান্ড জাতির বিবেককে বেশি নাড়া দিয়েছে। সর্বত্র দাবি উঠেছে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করার। সকল মহলের দাবি আশা করছি mother of humanity জননেত্রী শেখ হাসিনা বিবেচনায় নিয়ে সামনের দিকে পথ চলতে চেষ্টা করবেন।ছাত্রলীগ বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছে এটা সবাই স্বীকার করবেন। এ ধ্রুব সত্যকে অস্বীকার করার কোন উপায় নেই।সত্যকে মেনে নেওয়ার সাহস বঙ্গবন্ধুর কন্যার রয়েছে। যেমন করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সরকারে থেকেও দুর্নীতি বিরোধী অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। এ দুনীর্তি বিরোধী অভিযানকে আমরা স্বাগত জানাই।জননেত্রীর পাশে থেকে তাঁর হাতকে শক্তিশালী করার মধ্য দিয়েই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যত অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধ সহ ছাত্র রাজনীতি চিরতরে বন্ধ করতে হবে।প্রয়োজনে সংসদে আইন পাস করে হলেও ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করে মা বাবার স্বপ্নকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে।আর কোন মার বুক খালি করা যাবে না।

লেখক
সভাপতি
বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ও বঙ্গবন্ধু গবেষক।

এডুকেশন বাংলা/একে

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর