বয়সসীমা নির্ধারণ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে মেধাতালিকা করবে এনটিআরসিএ

নিজস্ব প্রতিবেদক

এডুকেশন বাংলা

প্রকাশিত : ০৭:৪৩ পিএম, ৮ মে ২০১৮ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৯:৩৮ এএম, ৯ মে ২০১৮ বুধবার

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগে সর্বোচ্চ ৩৫ বছর বয়সসীমা করা হচ্ছে। বয়সসীমা নির্ধারণ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে মেধাতালিকা তৈরি করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আদালতের নির্দেশ বাস্তবায়নে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ে একটি প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে।

আদালতের রায়ে বলা হয়, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা নির্ধারণ করা, তিন মাসের মধ্যে জাতীয়ভাবে নিবন্ধিত সব শিক্ষকের একটি মেধাতালিকা প্রণয়ন, প্রতি বছর নিবন্ধন পরীক্ষার আয়োজন করা। এনটিআরসিএ কর্তৃক সুপারিশকৃত শিক্ষকদের যোগদান করতে দেয়া না হলে ৬০ দিনের মধ্যে সেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কমিটি বাতিল করা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. জাবেদ আহমেদ জানান, আদালতের রায়ের পর নিবন্ধিতদের চাকরিতে যোগদানের বয়সসীমা নির্ধারণের প্রস্তাব দিয়ে এনটিআরসিএ আমাদের কাছে চিঠি পাঠায়। এরপর এমপিও নীতিমালার আলোকে আমরা নিবন্ধিত শিক্ষকদের যোগদানের বয়সসীমা ৩৫ করার প্রস্তাব করেছি। এটি আগামী সপ্তাহে চূড়ান্ত হয়ে এনটিআরসিএ-তে পাঠানো হবে।

এনটিআরসিএ`র সদস্য মো. হুমায়ন কবির বলেন, যোগদানের এই বয়সসীমা নির্ধারণ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে মেধাতালিকা তৈরি করা হবে। এরপর এনটিআরসিএ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শূন্য পদে শিক্ষক নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা হবে।

প্রসঙ্গত, বিভিন্ন সময়ে শিক্ষক নিবন্ধিত প্রার্থীরা নানাভাবে বঞ্চিত হয়ে এ পর্যন্ত ২৫০টি মামলা করেন। গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর ১৬৬টি মামলার রায় দেন আদালত।

এদিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রায় দুই বছর ধরে নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে পদ শূন্য রয়েছে। ১-১২তম শিক্ষক নিবন্ধিতদের রিটের কারণে নিয়োগ আটকা রয়েছে। অনেক জল্পনা-কল্পনার পর নিবন্ধিতদের পক্ষে রায় দেন আদালত।