এবার স্নাতকে সাত বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি

এডুকেশন বাংলা

প্রকাশিত : ১০:৫৮ এএম, ২১ আগস্ট ২০১৯ বুধবার

প্রথমবারের মতো গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কৃষিবিজ্ঞান বিষয়ে ডিগ্রি প্রদানকারী সাত বিশ্ববিদ্যালয়। ইতিমধ্যে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক শ্রেণির ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে গুচ্ছ পদ্ধতিতে কৃষিবিজ্ঞান বিষয়ক ভর্তি কমিটি।

আগামী ১০ সেপ্টেম্বর থেকে অনলাইনে ভর্তি আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হবে। চলবে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত। ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ৩০ নভেম্বর। ভর্তি সংক্রান্ত আরো বিস্তারিত তথ্য দেখে নিন-

বিশ্ববিদ্যালয় ও আসনসংখ্যা
সাত বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ৩৫৫১ আসনে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হবে। এর মধ্যে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১১০৮ জন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৩০ জন, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭০০ জন, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪৩১ জন, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫৮৭ জন, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৪৫ জন এবং খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৫০ শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পাবেন।

আবেদনের যােগ্যতা
আবেদনের জন্য শিক্ষার্থীদের ২০১৬ বা ২০১৭ সালে এসএসসি বা সমমান এবং ২০১৮ বা ২০১৯ সালে এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ হতে হবে। এসএসসি বা সমমান এবং এইচএসসি বা সমমান উভয় পরীক্ষায় জীববিদ্যা, রসায়ন, পদার্থবিজ্ঞান এবং গণিত আলাদা বিষয় হিসেবে থাকতে হবে। এসএসসি বা সমমান এবং এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উভয় ক্ষেত্রে প্রতিটিতে চতুর্থ বিষয় ব্যতীত ন্যূনতম জিপিএ ৩.০০ এবং সর্বমােট ন্যূনতম জিপিএ ৭.০০ থাকতে হবে।

জিসিই ‘ও’ লেভেল এবং ‘এ’ লেভেল পাসকৃত প্রার্থীর ক্ষেত্রে ‘ও’ লেভেল পরীক্ষায় ৫টি বিষয়ে কমপক্ষে ‘B’ গ্রেড এবং ‘এ’ লেভেল পরীক্ষায় পদার্থ, রসায়ন, গণিত ও জীববিজ্ঞান বিষয়সমূহের প্রত্যেকটিতে কমপক্ষে ‘B’ গ্রেড থাকতে হবে। ‘ও’ লেভেল এবং ‘এ’ লেভেলের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে A গ্রেডের জন্য ৫, B গ্রেডের জন্য ৪, C গ্রেডের জন্য ৩.৫ এবং D গ্রেডের জন্য ৩ পয়েন্ট গণ্য করা হবে।

আবেদনের নিয়ম
গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীরা www.admission-agri.org ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১০০০ টাকা। মােবাইল ব্যাংকিং রকেট, বিকাশ ও শিওরক্যাশের মাধ্যমে আবেদন ফি জমা দিতে হবে। অনলাইনে আবেদনের সময়সীমা ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত।

ভর্তি পরীক্ষা
আগামী ৩০ নভেম্বর শনিবার বেলা ১১ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাদে বাকী ছয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে পরীক্ষা নেয়া হবে। আবেদনকারীদের মধ্য থেকে মেধার ভিত্তিতে মােট আসন সংখ্যার দশ গুণ বা প্রায় ৩৫ হাজার ৫১০ জন প্রার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন।

পরীক্ষা হবে এমসিকিউ পদ্ধতিতে। পূর্ণমান ১০০ নম্বর। উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সর্বশেষ বইয়ের অনুসরণে ইংরেজি, জীববিদ্যা, রসায়ন, পদার্থবিজ্ঞান এবং গণিত বিষয়ের প্রশ্ন থাকবে। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কাটা যাবে।

এডুকেশন বাংলা/এজেড