মাগুরায় দুর্নীতির মামলায় স্কুলশিক্ষক গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক

এডুকেশন বাংলা

প্রকাশিত : ০৯:৪৫ এএম, ১০ আগস্ট ২০১৯ শনিবার

দুর্নীতির মামলায় মাগুরা সরকারি বালক উচ্চবিদ্যালয়ের সাবেক ধর্মশিক্ষক মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম গ্রেপ্তার হয়েছেন।

মহম্মদপুর থানার এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন জেলা শহরের ভায়না মোড় এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেন বলে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জিয়াউল হাসান জানান।

তিনি বলেন, বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয় চত্বরে থাকা মেহগনি কাঠের তিনটি টুকরো, এক কয়েল বৈদ্যুতিক তার ও কম্পিউটার সামগ্রী গোপনে বিক্রি করে সমুদয় অর্থ আত্মসাৎ করেছেন জাহিদুল ইসলাম। এ বিষয়ে প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়। মামলা তদন্ত করে দুদক। তারা আদালতে প্রতিবেদন দিলে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পারোয়ানা জারি করে আদালত।

“এরই মধ্যে জাহিদুল  রাজবাড়ি জেলার গোয়ালন্দ শহীদ স্মৃতি সরকারি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে বদলি হন। তবে গ্রেপ্তারি পারোয়ানা জারির খবরে আত্মগোপনে যান তিনি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ শুক্রবার মাগুরা শহরের ভায়না এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।”

জাহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির আরও অভিযোগ রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “কোনো অনুমতি ছাড়াই জাহিদুল মাগুরা সরকারি বালক উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বাসভবনে সপরিবার প্রায় পাঁচ বছর অবৈধভাবে বসবাস করেছেন। স্কুলের আম, কাঁঠাল, পেয়ারা, পুকুরের মাছসহ সব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেছেন। কোনো নোটিশ তিনি আমলে নেন নাই। পরে তাকে বাসা থেকে বের করে দেয় প্রশাসন।

“প্রায় এক যুগ ধরে ধর্ম ক্লাসের বদলে ষষ্ঠ শ্রেণির প্রভাতী শাখায় শ্রেণিশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আর পরীক্ষায় ফেল করানোর ভয় দেখিয়ে ছাত্রদের তার কাছে গণিত, বাংলা ও কৃষি শিক্ষা প্রাইভেট পড়তে বাধ্য করেছেন। এ ধরনের নানা অভিযোগে তাকে দুইবার অন্যত্র বদলি করা হয়। কিন্তু তিনি তদবির করে আবার ফিরে আসেন।”


এডুকেশন বাংলা/এজেড