শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:৩৫ পিএম


'অনেকেই শিক্ষক নামধারী আসলে ভিতরটা শয়তানে ভরা'

মো. নজরুল ইসলাম রনি

প্রকাশিত: ০৯:০৫, ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ইউএসএ একজন মিথ্যা ও বানোয়াট কথা বলে যেমন দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে তেমনি বাংলাদেশেও ওরা এমপি/মন্ত্রীকে কে কান ভারী করার চেষ্টা করছে।যাতে শিক্ষকদের জাতীয়করণ বিষয় নিয়ে এগুতে না পারি।এমন ভাবে মিথ্যাকে সাজিয়ে বলে মনে হবে সব সত্য।ওদের ত গীবত কি জানা নেই।ওরা যা পারে আমরা তা পারিনা।একদিন এমপি সাহেবও বুঝতে পারবেন।বিষধর সাপকে দুধ কলা দিয়ে পুষলে কি হয় সবাইর জানা আছে।শিক্ষকদের বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে অনেক সময় কাজের গতি কমে যায়।

অনেকেই শিক্ষক নামধারী আসলে ভিতরটা শয়তানে ভরা।পরের ভালোটা মানতে নারাজ।হিংসা আর সুগভীর ষড়যন্ত্র চলছে।আসলে শিক্ষকরা ঐক্যবদ্ধ হতে না পারলে কোন দাবিই পূর্ণ হবেনা। একজন এগিয়ে গেলে আরেক জন তার পা টেনে ধরে রাখতে চেষ্টা করে।কেউ কিছু মনে করবেন না।

এটা আমার ২০ বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি। আমার বিরুদ্ধে এমন ষড়যন্ত্র ২০০৩/২০০৪ সালেও( বিএনপি আমলে) করা হয়েছিল।কিন্তু আমি মনে করি, আমি সত্য ও নিষ্ঠার সাথে আছি।তাই এসব নিয়ে চিন্তা করিনা ইনশাললাহ।একাত্তরের পরাজিত শক্তিরাই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।

আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের শিক্ষক সমাজ এবং স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি।কোন ষড়যন্ত্রকে ভয় করি না ইনশাললাহ।শীঘ্রই মুজিব বর্ষ পালনে পরামর্শ করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে আনুষ্ঠানিক সাক্ষাত্কার চেয়ে আবারও গণভবণে যাবো। মুজিব বর্ষ"উদযাপনে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির করণীয় বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দিক নির্দেশনা চাওয়া হবে।

আমরা মোরা মুজিব সেনা ভয় করিনা বুলেট বোমা।
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু।

মো. নজরুল ইসলাম রনি
সভাপতি বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ও মুখপাত্র
এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরাম।

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর