মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ১৭:৪৩ পিএম


৪০ লাখ টাকায় এমবিবিএসে ভর্তি করাতেন কোচিং পরিচালক!

শীর্ষ ঠাকুর

প্রকাশিত: ১৮:৩৮, ১০ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ০৮:৪৭, ১১ অক্টোবর ২০১৯

সরকারি মেডিকেলে কে না ভর্তি হতে চান? তবে সবাই ভর্তি হতে পারেন না। এখানে পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি হতে হয়। তাই কঠিন মেধাবী না হলে ভর্তি হওয়াটা অসম্ভব। কিন্তু আপনার যদি টাকা থাকে তবে নো চিন্তা ডু ফুর্তি। চলে যান খুলনায় থ্রি ডক্টরস কোচিংয়ে। এখানে ৩০ থেকে ৪০ লাখ টাকায় আপনাকে নিশ্চিত সরকারি এমবিবিএসে ভর্তির সুযোগ করে দিবেন সংশ্লিষ্টরা। আশ্চার্য হওয়ার মতো হলেও ঘটনা সত্য। এমনই তথ্য দিয়েছে সরকারের একটি গোয়েন্দা সংস্থা।

 বৃহস্পতিবার এমবিবিএস ভর্তি পরীায়  প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে খুলনায় মেডিক্যাল ভর্তি কোচিং সেন্টার থ্রি ডক্টরসের পরিচালক ডা. তারিম ওরফে ইউনুস খান তারিমকে আটক করা হয়েছে। এই তারিম একজন সরকারি ডাক্তার। তিনি খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের একজন মেডিক্যাল অফিসার। ডা. তারিম বিএমএর সদস্য, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) খুলনা জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি।

আজ বৃহস্পতিবার নগরীর বেনুবাবু রোড়ের জাহান মঞ্জিলে অবস্থিত কোচিং থেকে তাকে আটক করা হয়। খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইমরান খান ও মো. মিজানুর রহমান অভিযান পরিচালনা করে তাকে আটক করেন। অভিযানকালে থ্রি ডক্টরস অফিসের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ এবং কম্পিউটারের হার্ডিক্স জব্দ করা হয়।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইমরান খান বলেন, ‘১১ অক্টোবর (শুক্রবার) অনুষ্ঠিতব্য সরকারি ও বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজের ভর্তি পরীাকে কেন্দ্র করে এক মাস দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। সরকারি নির্দেশ উপো করে থ্রি ডক্টরস খোলা রেখে তার পরিচালক ডা. তারিম শিার্থীদের নিয়ে কাস চালাচ্ছেন।’ তিনি জানান, ‘এমবিবিএস ভর্তি পরীায় প্রশ্নপত্র ফাঁসে পরিচালক তারিম যুক্ত কিনা এ বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ ও বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’ ইমরান খান বলেন, ‘মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিবিএস ভর্তি পরীায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধসহ সকল প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা প্রতিরোধে খুলনা জেলা প্রশাসন এই অভিযান পরিচালনা করে। তিনি বলেন, পরে বিস্তারিত জানানো হবে।’

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর