রবিবার ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ১৮:১৯ পিএম


১২ ছাত্রীকে ধর্ষণ-হয়রানির অভিযোগে মাদরাসা শিক্ষক ৫ দিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬:৩৮, ৭ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ১৯:২২, ৭ জুলাই ২০১৯

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ১২ শিশুকে ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ওঠা বায়তুল হুদা ক্যাডেট মাদরাসার প্রধান শিক্ষক আল আমিনের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় রোববার (৭ জুলাই) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম কাউসার আলম এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে আল আমিনকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ। তবে শুনানি শেষে আদালত পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, শিক্ষক আল আমিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে নির্যাতিত শিশু শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এক অভিভাবক আরও একটি মামলা করেছেন। ওই মামলায় নির্যাতিত তিন শিশুর জবানবন্দি নেওয়াসহ আলামত হিসেবে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন জব্দ করে তদন্ত করা হচ্ছে। এরই মধ্যে বিষয়টি সিআইডি পর্যবেক্ষণ করছে। অধিকতর তদন্তের প্রয়োজনে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষ হলে ধর্ষণের মামলায় শিক্ষক আল আমিনকে আবারও আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

এর আগে বিভিন্ন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছ থেকে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার মাহমুদপুর এলাকার বায়তুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসা থেকে এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান শিক্ষক আল আমিনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে তার বিরুদ্ধে নির্যাতিত শিশু শিক্ষার্থীর অভিভাবক ও র‌্যাব ফতুল্লা থানায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করে।

এডুকেশন বাংলা/একে

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর