শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৩:১৬ পিএম


১১ শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিল থাইরোকেয়ার বাংলাদেশ

এডুকেশন বাংলা ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০:৩৪, ২৭ নভেম্বর ২০১৯  

‘থাইরোকেয়ার নিয়াজ মোরশেদ লিডারশিপ স্কলারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ পাওয়া ১১ শিক্ষার্থীর প্রত্যেককে এক লাখ টাকার চেক দিল রোগ নিরূপণ কেন্দ্র ‘থাইরোকেয়ার বাংলদেশ’।

বুধবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর শাহজাদপুরে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের হাতে এই চেক তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে থাইরোকেয়ার বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান রিয়াজ ইসলাম ও প্রখ্যাত দাবাড়ু গ্র্যান্ড মাস্টার নিয়াজ মোরশেদ উপস্থিত ছিলেন।

স্কলারশিপপ্রাপ্ত এক শিক্ষার্থীর হাতে এক লাখ টাকার চেক তুলে দেওয়া হচ্ছেস্কলারশিপপ্রাপ্ত এক শিক্ষার্থীর হাতে এক লাখ টাকার চেক তুলে দেওয়া হচ্ছেথাইরোকেয়ার বাংলাদেশ হচ্ছে একটি আন্তর্জাতিক চেইন ডায়াগনস্টিক ল্যাবরেটরির বাংলাদেশ শাখা। তারা বাংলাদেশে রক্তের প্রায় ৬৬০ ধরনের পরীক্ষা করে থাকে।

থাইরোকেয়ার বাংলাদেশ রোগীর বাসা থেকে রক্ত নিয়ে যায় এবং ইমেইলে পরীক্ষার প্রতিবেদন পাঠিয়ে দেয়। সাশ্রয়ী মূল্যে মানসম্পন্ন সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে এরইমধ্যে পরিচিত হয়ে উঠেছে প্রতিষ্ঠানটি।

অনুষ্ঠানে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে রিয়াজ ইসলাম বলেন, আপনারা যারা এই স্কলারশিপ পেয়েছেন তারা অত্যন্ত মেধাবী। আমরা আশা করব, আপনারা নিজ নিজ জীবনের একটি ভালো লক্ষ্য স্থির করবেন। সেই লক্ষ্য অনুয়ায়ী কাজ করবেন। জীবনে একটা ফোকাস থাকতে হয় তবেই জীবনে উন্নতি করা যায়।

সব সময় এই শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়ে তিনি বলেন, আমরা যখন ছোট ছিলাম আমরা অনেক ভালো ‘গাইডেন্স’ পাইনি। আমরা চেষ্টা করব আপনাদের সাথে থাকতে এবং আপনারা যে লক্ষ্য স্থির করবেন তাতে যেন আমরা সাহায্য করতে পারি। আমরা প্রতি মাসে একবার আপনাদের সাথে বসার চেষ্টা করব।

এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে থাইরোকেয়ার বাংলাদেশ যেভাবে পাশে দাঁড়াচ্ছে, ভবিষ্যতে তারাও যেন তরুণদের পাশে দাঁড়ান সেই প্রত্যাশা রাখেন রিয়াজ ইসলাম। তিনি বলেন, আমরা আশা করব, আমরা যেভাবে আপনাদের ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে সাহায্য করব, আপনারাও অন্যদেরকে এভাবে সাহায্য করবেন। তাহলে আমাদের এই বাংলাদেশের জন্য ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব গড়ে তোলার প্রয়াস স্বার্থক হবে।

শিক্ষার্থীদের সামনে নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে এশিয়ার দেশগুলো থেকে প্রথম গ্র্যান্ড মাস্টার খেতাবধারী নিয়াজ মোরশেদ বলেন, আমার জীবনে অনেক সময় আমাকে একাই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। আমি যদি ভালো দিকনির্দেশনা পেতাম আমি হয়ত আরও ভালো করতে পারতাম। আপনারা সবাই একটি ভালো অবস্থানে আছেন। কিন্তু জীবনে অনেক ঘাত-প্রতিঘাত আসতে পারে। সেজন্য একটা ভালো গাইডেন্স দরকার। আমি আশা করব, ঘাত-প্রতিঘাত জয় করে আপনারা এগিয়ে যাবেন।

এর আগে ১৬ নভেম্বর ঢাকার পার্ল সেন্টারে থাইরোকেয়ার বাংলাদেশের পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের হাতে ‘থাইরোকেয়ার নিয়াজ মোরশেদ লিডারশিপ স্কলারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ তুলে দেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। এদিন তাদের হাতে বৃত্তির অর্থ তুলে দেওয়া হল।


থাইরোকেয়ার বাংলদেশের চেয়ারম্যান রিয়াজ ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ব্যবসার পাশাপাশি দেশের জন্য কিছু করার আকাঙ্ক্ষা থেকেই এই উদ্যোগ নিয়েছেন তারা। বাংলাদেশের প্রধান সম্পদ মানুষ এবং একজন ভালো নেতা পারে একটা দেশকে বদলে দিতে। তাই আমাদের এই উদ্যোগ।

এডুকেশন/কেআর

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর