মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ৮:২৬ এএম


সপ্তম-দশম শ্রেণির দুই শতাধিক শিক্ষার্থীর গবেষণাপত্র উপস্থাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১১:৫২, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৭:৩২, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

গবেষক সম্মেলনগবেষণা সংগঠন ‘চিন্তার চাষ’ এর চতুর্থ ক্ষুদ্র গবেষক সম্মেলনে দেশের আটটি বিভাগ থেকে আসা প্রায় ৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সপ্তম থেকে ১০ম শ্রেণির দুই শতাধিক শিক্ষার্থী গবেষণাপত্র ও ধারণাপত্র উপস্থাপন করেছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) প্রধান মিলনায়তনে দিনব্যাপী এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সকালে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। তিনি বর্তমান প্রজন্মকে আরও বেশি গবেষণামুখী হওয়ার জন্য স্কুল শিক্ষার্থীদের মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শফিকউজজামান বলেন, বাংলাদেশে অনেক প্রতিভা আছে যার যথার্থ ও সঠিক মূল্যায়ন করা হয় না। যদি করা হতো তাহলে দেশ আরও অনেক দূর এগিয়ে যেতো। আমাদের প্রয়োজন নিজস্ব উদ্যোগে এ সকল মেধাবীর মূল্যায়ন করা।
সম্মেলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জেবা আই সেরাজ বলেন, ‘সকলকে আরও বেশি কর্মঠ ও পরিশ্রমী হতে হবে যাতে আমরা উন্নত দেশগুলোর সঙ্গে পাল্লা দেওয়ার সক্ষমতা অর্জনের পথে এগিয়ে যেতে পারি।’

চিন্তার চাষ -এর নির্বাহী পরিচালক এস এম মেসবাহ আর রহমান বলেন, ‘উদ্ভাবন বিষয়টি তারুণ্যের বৈশিষ্ট্য। আর এই বৈশিষ্ট্যটি তরুণদের মাঝে সঞ্চারের জন্যই আমাদের এ প্রচেষ্টা।’
সভাপতির বক্তব্যে চিন্তার চাষ-এর চেয়ারম্যান মুহাম্মদ শফিকুর রহমান বলেন, ‘সামনের অন্ধকারাচ্ছন্ন ভবিষ্যতে আলোর দীপ্তি ছড়াতে পারে আজকের এই ক্ষুদে গবেষকরা। তাদের ওপর আমাদের পুরো জাতির স্বপ্নীল ভবিষ্যত নির্ভর করছে।’ অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষকরা উপস্থিত ছিলেন।

বিকাল ৫টায় সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের উপাচার্য জাতীয় অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ, সোনালী ব্যাগের আবিষ্কারক বাংলাদেশ পাট শিল্প করপোরেশনের বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা ড. মোবারক আহমেদ খান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. এম এম আকাশ।

 

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর