শনিবার ২০ জুলাই, ২০১৯ ১৫:৩৬ পিএম


শুরু হল ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ প্রতিযোগিতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১২:৩৬, ১০ মার্চ ২০১৯  

‘আমার উদ্ভাবন, আমার স্বপ্ন’ শিরোনামে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নিয়ে শুরু হল ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ প্রতিযোগিতা। আইসিটি বিভাগের ‘ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্ট্রাপ্রনারশিপ একাডেমি’ (আইডিয়া) প্রজেক্ট এবং দেশের সর্ববৃহৎ তারুণ্যের প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলার যৌথ উদ্যোগে এ ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ : চ্যাপ্টার ওয়ান’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘তরুণরা চাকরি খুঁজবে না, চাকরি দেবে।’ তিনি বলেন, ‘আমরা তরুণদের হাতে একদিনের খাবার তুলে দিতে চাই না। সারা জীবনের খাবার তুলে দিতে চাই।’ তিনি আরও বলেন, আপনি কাউকে একটি মাছ কিনে দিলে একদিনের খাবার তুলে দেয়া হয়; কিন্তু তাকে মাছধরা শিখিয়ে দিলে সারাজীবনের খাবার তুলে দিলেন। আমরাও সেভাবে কাজটি করতে চাচ্ছি।

ঢাকার আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে আইডিয়া প্রকল্প মিলনায়তনে বেলা ১১টায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আইসিটি বিভাগের সচিব এনএম জিয়াউল আলম, সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) কো-অর্ডিনেটর তন্ময় আহমেদ, আইডিয়া প্রকল্পের প্রজেক্ট ডিরেক্টর সৈয়দ মজিবুল হক।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আইডিয়া প্রকল্পের মাধ্যমে ২০২১ সাল নাগাদ ১ হাজারের বেশি স্টার্টআপ চালু করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের অনেক আইডিয়া থাকে; কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় জীবন পার করার পর অধিকাংশ সময় তা আর বাস্তবায়ন হয় না। সে কারণেই বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে আমাদের ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ আয়োজন। প্রথম পর্বে ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ে এ আয়োজন করা হলেও পর্যায়ক্রমে সব বিশ্ববিদ্যালয়কে এ কার্যক্রমের আওতায় আনা হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত আইডিয়া প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ মজিবুল হক বলেন, যেসব স্টার্ট আপের প্রডাক্ট ভ্যালু আছে, তাদের জন্য কোটি টাকা সিডি মানি দিয়ে বিনিয়োগ করতে প্রস্তুত আছে স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড।

স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ আয়োজনের মধ্য দিয়ে চলমান বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের উদ্ভাবনী ভাবনা ও পরিকল্পনা সংগ্রহ করা হবে। একই সঙ্গে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের প্রতিষ্ঠান পরিচালনা, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং ভবিষ্যতে এগিয়ে যাওয়ার বিষয়ে খুঁটিনাটি ধারণাগুলো নিয়ে কাজ করা হবে। এর মধ্য দিয়ে দেশের আট বিভাগ থেকে ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে পরিচালিত হবে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ : চ্যাপ্টার ওয়ান’ প্রতিযোগিতা।

প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব শিক্ষার্থী ছাড়াও অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করে প্রতিযোগিতার জন্য আবেদন করতে পারবে। সেখানে ইয়াং বাংলার ক্যাম্পাস অ্যাম্বাসেডরদের সহায়তায় পরিচালিত প্রতিযোগিতা থেকে গড়ে ৩টি দল বাছাই করা হবে। ৪০ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আসা এ ১২০ দল নিয়ে প্রথমবারের মতো ‘জাতীয় স্টার্টআপ ক্যাম্প’ অনুষ্ঠিত হবে সাভারে। সেখান থেকে দর্শক ভোট এবং বিচারকদের ভোটে বাছাই করা হবে মূল প্রতিযোগিতার ৩০ স্টার্টআপ। আইডিয়া প্রকল্পের বাছাই কমিটি এবং অন্যান্য বিচারকদের সাহায্যে ১০ স্টার্টআপ জাতীয় পর্যায়ে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করা হবে। এ দলগুলো নিজেদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অর্থ ও পরামর্শসহ সব ধরনের সহায়তা পাবে আইডিয়া প্রজেক্ট থেকে।

এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর