শুক্রবার ১৯ জুলাই, ২০১৯ ২২:২৭ পিএম


শিক্ষামন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে শিক্ষা মেলা!

শরীফুল আলম সুমন

প্রকাশিত: ০৯:৫৭, ৩ জুলাই ২০১৯  

আগামী ২৮ থেকে ৩০ জুলাই রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তিন দিনব্যাপী ‘এডুকেশন ট্রেনিং অ্যান্ড জব ফেয়ার’-এর আয়োজন করছে ওভাল গ্রুপ নামের একটি প্রতিষ্ঠান। ১ থেকে ৩ আগস্ট চট্টগ্রামের র‌্যাডিসন ব্লুতে একই আয়োজন করছে গ্রুপটি। তবে উভয় আয়োজনকে ঘিরে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির নাম ব্যবহার করা হচ্ছে। স্পন্সর এবং স্টলের জন্য বড় অঙ্কের অর্থ নেওয়া হচ্ছে। এমনকি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে পাঠানো তাদের ব্রুশিয়ারে শিক্ষামন্ত্রীর ছবিও ব্যবহার করা হয়েছে। এ নিয়ে বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছে।

শিক্ষা মেলার ব্রুশিয়ারে দেখা যায়, টাইটেল স্পন্সরের জন্য ১০ লাখ টাকা, পাওয়ার্ড বাই এর জন্য সাত লাখ টাকা, প্লাটিনাম স্পন্সরের জন্য পাঁচ লাখ টাকা, গোল্ড স্পন্সরের জন্য তিন লাখ টাকা এবং হাফ পেজ স্যুভেনির বিজ্ঞাপনের জন্য আট লাখ টাকা নির্ধারণ করে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া দামের ভিন্নতা রয়েছে স্টলের সাইজ অনুসারে। আট ফুট বাই আট ফুট স্টলের জন্য এক লাখ, প্যাভিলিয়নের জন্য দুই লাখ এবং মেগা প্যাভিলিয়নের দাম ধরা হয়েছে সাড়ে তিন লাখ টাকা।

ঢাকায় মেলার প্রথম দিনের কর্মসূচিতে উল্লেখ করা হয়েছে, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি মেলার উদ্বোধন করবেন। এরপর প্রদর্শনী চলবে সকাল ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। সেখানে স্পট অ্যাডমিশনের ব্যবস্থাও থাকবে। এ ছাড়া সেমিনার, র‌্যাফেল ড্রসহ নানা আয়োজন থাকছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, আগামী ২০ থেকে ২২ জুলাইয়ের মধ্যে দেওয়া হবে এইচএসসি ও সমমানের ফল। ওই শিক্ষার্থীদের একটা বড় অংশ দেশের ১০৪টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবে। মূলত সেদিকে লক্ষ্য রেখেই এই মেলার আয়োজন করা হয়েছে। কারণ এতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও স্পন্সর হতে এবং স্টল নিতে আগ্রহী হবে। আর যেহেতু শিক্ষামন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন, তাই এতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে পেতে আরো সহজ হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ২৮ জুলাই শিক্ষামন্ত্রীর এই কর্মসূচিতে অংশ নেওয়ার কথা আছে। তবে মন্ত্রণালয় জানে, এটা শিক্ষাবিষয়ক সেমিনার ও জব ফেয়ার।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে স্যুভেনির আর মেলা করা হচ্ছে এটা আমরা কোনোভাবেই জানি না। আর এ উপলক্ষে স্পন্সর ও স্টল বরাদ্দ বাবদ বিভিন্ন জায়গা থেকে টাকা তোলা হচ্ছে তা জানলে শিক্ষামন্ত্রী কোনোভাবেই ওই প্রগ্রামে যাবেন না।’

তবে ওভার গ্রুপের ওয়েবসাইট ভিজিট করে দেখা গেছে, তাদের অফিস গুলশান-২ নম্বর সার্কেলের প্রগতি সরণিতে। তাদের সার্ভিসগুলোর মধ্যে দেখা যায়, ইভেন্টস অ্যান্ড অ্যাক্টিভিশন, অ্যাডভারটাইজমেন্ট, ডিজিটাল অডিও অ্যান্ড ভিজ্যুয়াল, ফ্যাশন হাউস অ্যান্ড টেইলরিং, ইভেন্ট বুকিং, হেলথ কেয়ার ও ভিএসএস সিকিউরিটি। তবে শিক্ষাসংক্রান্ত কাজ করার কোনো অভিজ্ঞতার কথা তাদের ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়নি।

ওভাল গ্রুপের শিক্ষা মেলার দায়িত্বে থাকা সিনিয়র ম্যানেজার মো. রবিউল আলম খান বলেন, ‘মেলার উদ্বোধন করবেন শিক্ষামন্ত্রী। এরই মধ্যে ১০ থেকে ১২টি প্রতিষ্ঠান ফেয়ারে অংশগ্রহণের জন্য কনফার্ম করেছে।’ ব্রুশিয়ারে মন্ত্রীর নাম ও ছবি ব্যবহারের অনুমতি রয়েছে কি না তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে জানেন।’ শিক্ষাসংক্রান্ত কাজের অভিজ্ঞতার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘আমরা অসংখ্য সফল ইভেন্ট আয়োজন করেছি। শিক্ষাসংক্রান্ত আয়োজন আমাদের প্রথম। তবে আমরা শিক্ষা সপ্তাহের ক্রেস্টসহ নানা উপকরণ সরবরাহ করেছি।’

এর আগে নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষামন্ত্রী থাকার সময়ে ২০১৩ সালের আগস্ট মাসে ‘এইম ওয়ার্ল্ড’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান শিক্ষামন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে ‘এডুকেশন এক্সপো’ করতে কাজ শুরু করেছিল। স্পন্সর বাবদ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কাছে বড় অঙ্কের টাকা দাবি করেছিল তারাও। শিক্ষা মন্ত্রণালয় পরে ওই মেলা বন্ধ করে দেয়।

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর