রবিবার ০৫ এপ্রিল, ২০২০ ০:৪৪ এএম


শিক্ষকের থাপ্পড়ে কান থেকে রক্ত ঝরল শিশু শিক্ষার্থীর!

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৩:০৮, ৫ মার্চ ২০২০  

সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর থানার গোপালপুর গ্রামের বন্ধন তালিমুল কোরআন নূরানিয়া ও হাফিজিয়া মাদ্রাসা এখন শিক্ষার্থীদের কাছে আতঙ্কের নাম। এই মাদ্রাসার শিক্ষকদের হাতে মাঝে মধ্যেই ঘটছে শিশু নির্যাতনের ঘটনা। গত সোমবার মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আমিরুল ইসলাম থাপ্পড় দিয়ে প্রথম শ্রেণির ছাত্র রিফাত হোসেনের (৬) কানের পর্দা ফাটিয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার পর শিশুটির কান দিয়ে রক্ত ঝরে এবং সে বর্তমানে কিছু শুনতে পারছে না বলে জানিয়েছেন তার বাবা বুলবুল ইসলাম। এদিকে অহরহ নির্যাতনের ঘটনায় আশপাশের এলাকার অন্তত ১৫/২০ জন ছাত্রছাত্রী মাদ্রাসা থেকে ভয়ে বের হয়ে এসেছে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার দিন মাদ্রাসায় লেখাপড়া করার সময় মুহতামিম আমিরুল ইসলাম তুচ্ছ ঘটনায় রুপনাই পূর্বপাড়া গ্রামের রিফাতকে কানে থাপ্পড় দেন। এতে যন্ত্রণায় চিত্কার দিতে দিতে সে বাড়িতে চলে যায়। রাতে কান দিয়ে রক্ত ঝরতে থাকে। পরে সিরাজগঞ্জে একটি ক্লিনিকে ডা. শফিউল ইসলামের কাছে নেওয়া হলে তিনি ঘটনা শুনে বিস্মিত হন। গতকাল বুধবার সকালে চিকিত্সা শেষে রিফাতকে বাড়িতে আনা হয়।

তার বাবা বুলবুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার ছেলেকে বছরখানেক আগেও এক শিক্ষক মারধর করেছিল। পরে অভিযোগ দিলে সালিশে মীমাংসা হয়। আবারও আমার সন্তানকে মেরে কান ফাটিয়ে দিয়েছেন মুহতামিম আমিরুল ইসলাম। আমি তার বিচার চাই।’ স্থানীয়রা জানান, এর আগে শিক্ষকদের দ্বারা নির্যাতিত হয়ে রুপনাই পূর্বপাড়া গ্রামের আসাদুল ইসলামের মেয়ে জুবায়দা (৬), রিপনের ছেলে আলিফসহ (৫) অন্তত ১৫/২০ জন ছাত্রছাত্রী মাদ্রাসা ছেড়েছে।

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর