মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ১৭:১৯ পিএম


শিক্ষকদের জীবনযাত্রার মান বাড়ালে শিক্ষার মান বেড়ে যাবে

মোঃ বদরুল আলম

প্রকাশিত: ২০:৩৪, ৩ অক্টোবর ২০১৯  

৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবস। শিক্ষা উন্নয়নের ক্ষেত্রে শিক্ষকদের অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ প্রতি বছর যথযথ মর্যাদায় বিশ্ব শিক্ষক দিবস পালিত হয়ে আসছে। বিশ্বের প্রতিটি দেশে শিক্ষকদের কাছে দিবসটি অত্যন্ত গৌরব ও মর্যাদার। বিশ্ব শিক্ষক দিবস পালনের ইতিহাস খুব বেশি দিনের নয়। ১৯৯০ সালে বিশ্বের ১৬৭টি দেশের ২১০টি জাতীয় সংগঠনের প্রায় ৩ কোটি ২০ লক্ষাধিক সদস্যদের প্রতিনিধিত্বকারি আন্তর্জাতিক শিক্ষক সংগঠন এডুকেশন ইন্টারনেশনাল গঠিত হয়। জাতিসংঘের সদস্যভুক্ত দেশ সমুহের অনুরোধ ও আহবানের ১৯৯৪ সালে খ্রিস্টাব্দে ২৬তম অধিবেশনে নেয়া সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে ইউনেস্কোর মহাপরিচালক ড. ফ্রেডারিক এম মেয়রের যুগান্তকারী ঘোষণার মাধ্যমে ৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবস হিসেবে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিশ্ব শিক্ষক দিবস পালিত হয়ে আসছে।

এই দিবস পালনে এডুকেশন উন্টারনেশনাল (ইআই) ও তার সহযোগি ৪০১ টি সদস্য সংগঠন মূল ভুমিকা রাখে। দিবসটি পালন উপলক্ষে (ই আই) প্রতি বছর একটি প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ করে থাকে। যা জনসচেতনা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষকতা পেশার অবদানকেও স্বরণ করিয়ে দেয়।

শিক্ষকতা পেশার মতো সম্মানজনক পেশা পৃথিবীতে দ্বিতীয়টি আর নেই। পৃথিবীতে যতোগুলো সম্মানজনক পেশা আছে তার মধ্যে শিক্ষতা সবচেয়ে মর্যাদার পেশা। মানুষের মধ্যে যারা সফল তারা ব্যক্তিগতভাবে কোন না কোন শিক্ষকের কাছে ঋণী। সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশ ও শিক্ষকতা একটি মহান পেশা হিসেবে স্বীকৃত। তবে বাংলাদেশে বর্তমান প্রেক্ষাপটে সবচায়ে বড় চ্যালেঞ্জ হল মান সম্মত শিক্ষা বাস্তবায়ন করা। বিভিন্ন ফলাফলের ভিত্তিতে পাশের আধিক্য বাড়লেও শিক্ষার গুনগত মান বাড়েনি। তাই মানসম্মত শিক্ষাদানের জন্য প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও দক্ষ শিক্ষক দিয়ে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাদান নিশ্চিত করতে হবে।

এডুকেশন ইন্টারন্যাশনাল, মান সম্মত শিক্ষার মূল উপাদান হলো হল : ১. মানসম্মত শিক্ষক, ২.মানসম্নত শিক্ষা উপকরণ এবং ৩ মানসম্মত পরিবেশ । এ বিষয়গুলো নিশ্চিত করা গেলে মানসম্মত শিক্ষা বাস্তবায়িত হবে বলে আমার বিশ্বাস। বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রাথমিক শিক্ষার অভূতপূর্ণ উন্নতি সাধিত হয়েছে। যেমন ঝড়ে পড়া রোধ,, জেন্ডার- সমতা, বিদ্যালয়ে গমন উপযোগী শতভাগ শিশুদের বিদ্যালয়ের আওতায় আনা, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা চালুকরণ, ই প্রাইমারি ব্যবস্থাপনা, মিড ডে মিল চালু, উপবৃত্তি প্রদানসহ নানাবিধ কাজ শিক্ষকরা অত্যন্ত নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। অথচ শিক্ষকদের জীবন মানের তেমন উন্নয়ন ঘটেনি । বিশ্ব শিক্ষক দিবসে সরকারের কাছে আহবান শিক্ষকদের জীবন যাত্রার মান বাড়ান শিক্ষার মান আপনা আপনি বেড়ে যাবে। এতে দেশ উন্নতি ও সমৃদ্ধি লাভ করবে।

লেখক : সভাপতি
বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতি

এডুকেশন বাংলা/একে

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর