রবিবার ১৮ আগস্ট, ২০১৯ ২০:৫০ পিএম


মায়ের অনৈতিক কাজ দেখে ফেলায় পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৯:১০, ১৭ জুলাই ২০১৯  

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে মায়ের অনৈতিক কাজ দেখে ফেলায় সিয়াম মাহমুদ নামে পঞ্চম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন প্রেমিক ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম ওরফে জামাল মেম্বার। এর আগে মঙ্গলবার উপজেলার সুলতানাবাদ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে মির্জাগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠালে এ স্বীকারোক্তি দেন তিনি। গ্রেফতারকৃত জামাল মেম্বারের তথ্যমতে, আবুল কালাম নামে আরও একজনকে গ্রেফতার করা হয়। জামাল মেম্বার উপজেলার মজিদবাড়িয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য।

পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার মঈনুল হাসান জানান, উপজেলার সুলতানাবাদের শাহজাহান গাজী ও একই বংশের ইসমাইল গাজীর সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। এ কারণে শাহজাহান গাজীর বাড়িতে ইউপি সদস্য জামালের সবসময় যাতায়াত ছিল। এতে একপর্যায়ে শাহজাহান গাজীর স্ত্রী শিল্পী আক্তার ও জামাল মেম্বারের পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ২৫ জানুয়ারি জামাল মেম্বার শাহজাহান গাজীর ঘরে ঢুকে স্ত্রী শিল্পী আক্তারের সঙ্গে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়। ঘটনাটি শিল্পীর শিশুপুত্র সিয়াম মাহমুদ দেখে ফেলায় রাতেই সিয়ামকে ঝালমুড়ি খাওয়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে যায় জামাল। পরে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে ভাড়াটে খুনি দিয়ে সিয়ামকে হত্যা করা হয়। সিয়ামের মৃত্যু নিশ্চিত করে খুনিরা প্রতিবেশী আমজেদ আলী আকনের বাড়ির পূর্ব পাশের ধানক্ষেতে ফেলে রাখে। ঘটনার পরের দিন ২৬ জানুয়ারি পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে এবং ২৭ জানুয়ারি সিয়ামের বাবা শাহজাহান গাজী থানায় মামলা করেন। জামাল মেম্বার বাদীপক্ষের হয়ে কাজ করছিলেন। কিন্তু এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ঘাটন করতে গিয়ে মূল হত্যাকারী জামাল মেম্বার বলে জানতে পারে পুলিশ।


এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর