সোমবার ১৯ আগস্ট, ২০১৯ ৯:৪১ এএম


মাদরাসা শিক্ষকের লালসার শিকার ছাত্রীর পড়াশোনা বন্ধ, শিক্ষক জেলে

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:১৩, ৩০ এপ্রিল ২০১৯  

ছাতকের গোবিন্দনগর ফজলিয়া ফাজিল মাদরাসার এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে ওই মাদরাসার শিক্ষক রাজিবুর রহমানকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। ছাত্রীর দায়ের করা মামলায় থানা পুলিশ রাজিবুর রহমানকে গ্রেফতার করে গত রবিবার সুনামগঞ্জ জেল হাজতে পাঠায়।

জানা যায়, মাদরাসার শিক্ষক রাজিবুর রহমানের কাছে বেশ কয়েকবার যৌন হয়রানির শিকর হয় ওই মাদরাসার এক ছাত্রী। সে এবার আলিম পরীক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনায় অধ্যক্ষ বরাবরে নালিশ করেও কাজ হয়নি। পরে সে লেখাপড়া বন্ধ করে দেয় এবং চলমান আলিম পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেনি।

গত শনিবার ক্ষুব্ধ হয়ে ওই ছাত্রী মাদরাসার ক্লাস রুমে গিয়ে অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুস সালাম আল মাদানীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। এ ঘটনার মাদরাসা ও এলাকা জুড়ে হৈ-চৈ শুরু হয়। ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

পরবর্তীতে অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুস সালাম আল মাদানী, ওই শিক্ষার্থী এবং তার পিতাকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবেদা আফসারীর ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়। তাদের বক্তব্য শুনে থানা পুলিশকে মামলা গ্রহণ করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বিকেলে ভিকটিম বাদী হয়ে ছাতক থানায় ওই মাদরাসার ইংরেজি শিক্ষক রাজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।সন্ধ্যায় অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ আতিকুর রহমান জানান, শিক্ষার্থীর অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষনিক অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই শিক্ষক বর্তমানে জেল হাজতে রয়েছেন।

এডুকেশন বাংলা/একে

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর