শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৪:৩৫ পিএম


মাদরাসা শিক্ষকের যৌন নিপীড়নে অসুস্থ শিশু হাসপাতালে

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৫:০৪, ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৯:৫৮, ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

জয়পুরহাট শহরের আরাম নগর হাফেজিয়া মাদরাসার এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রদের যৌন নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের শিকার মাদরাসাটির তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রকে তার স্বজনরা উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

বিষয়টি জানাজানি হলে রোববার (১ সেপ্টেম্বর) ওই শিক্ষক মাদরাসা বন্ধ করে পালিয়ে যান।

মাদরাসার কয়েকজন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এই হাফেজিয়া মাদরাসায় মূলত লেখাপড়া করে ১৪/১৫ জন শিশু। এরা প্রায় সবাই একেবারে দরিদ্র পরিবারের সন্তান।

এই আবাসিক মাদরাসার শিক্ষক আইয়ুব আলী নওগাঁর ধামুইরহাট উপজেলার কামিয়া ডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা। শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, তিনি প্রতি রাতে তাদের আরবি শেখাতেন। পরে শোবার সময় তার বিছানায় প্রায় প্রতি রাতে এক একজন শিশুকে ডেকে নিয়ে বলাৎকার করতেন।

এরই ধারাবাহিকতায় জেলা শহরের মাদারগঞ্জ এলাকার দরিদ্র পরিবারের এক শিশু শিক্ষার্থীকে ভয় দেখিয়ে গত প্রায় এক সপ্তাহ ধরে নির্যাতন করেন। শিশুটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে পালিয়ে বাড়ি চলে যায়। সেখানে মা-বাবাকে সব খুলে বলে সে। দ্রুত তাকে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. মুবিনুল ইসলাম মুবিন জানান, রোববার দুপুরে শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর থেকেই চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘শিশুটির মলদ্বারে ক্ষত রয়েছে এবং এটি যে বিকৃত যৌন নির্যাতন এতে কোনো সন্দেহ নেই’।

জয়পুরহাট সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রায়হান হোসেন জানান, অসুস্থ শিশুটির বাবা জয়পুরহাট সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ বিষয়টি দ্রুত আমলে নিয়ে তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পায়। তবে আসামি পলাতক থাকায় তাকে গ্রেফতার করা যায়নি। শিগগীরই তাকে গ্রেফতার করার আশ্বাসও দেন তিনি।

এডুকেশন বাংলা/একে

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর