রবিবার ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ৩:১৪ এএম


মাদরাসা শিক্ষকের ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা গৃহকর্মী

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯:৩২, ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

এক মাদরাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে গৃহকর্মী কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানা গেছে। নেত্রকোনার দুর্গাপুরে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় ধর্ষক সাফিউল্লাহ ওরফে এমদাদ বেলালীকে আটক করেছে পুলিশ।

অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে দুর্গাপুর থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মীর মাহবুব জানান, ধর্ষক সাফীউল্লাহ বেলালী মধুয়াকোনা এ.ইউ আলিম মাদরাসার এবতেদায়ী ক্বারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত বলে নিশ্চিত করেছেন ওই প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল মো. আজিজুল ইসলাম। তিনি উপজেলার চন্ডিগর মধুয়াকোনা গ্রামের উসমান গণির ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সাফীউল্লাহ বেলালীর বাড়িতে গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতো ওই কিশোরী। এক বছর আগে তার বাবা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। সেই সুযোগে বিয়ের প্রলোভনে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন এ শিক্ষক।

স্থানীয়রা জানায়, গত ১৮ আগস্ট সকাল ১০টার দিকে ধর্ষণের বিষয়টি জানাজানি হলে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন তারা। কোনো উপায় না পেয়ে সোমবার রাতে মেয়েটির মা বাদী হয়ে দুর্গাপুর থানায় একটি অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল রাত ২টার দিকে পুলিশ অভিযুক্ত ধর্ষক সাফিউল্লাহ ওরফে এমদাদ বেলালীকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে।

এ বিষয়ে ওসি মীর মাহবুব আরও জানান, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাকে বিকেলে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর