শুক্রবার ২৪ মে, ২০১৯ ১৯:৫৩ পিএম


মাদরাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার চিকিৎসক কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:০১, ২৮ এপ্রিল ২০১৯  

রাজধানীর দক্ষিণখানে একটি ক্লিনিকে মাদরাসাপড়ুয়া শিশু রোগীকে (১৩) হাত-পা বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার পল্লীচিকিৎসক বিজয়কৃষ্ণ তালুকদারকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার (২৮ এপ্রিল) ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে তাকে হাজির করে পুলিশ। পরে মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমান তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

অন্যদিকে শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে ওই শিশুকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশুটি স্থানীয় একটি মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী।

মেয়ের বাবা জানান, তারা উত্তরখান এলাকায় বসবাস করেন। গত ২৩ এপ্রিল (মঙ্গলবার) মেয়ের জ্বর হলে তাকে দক্ষিণখানের চালাবন এলাকার ‘দরিদ্র পরিবার সেবা সংস্থা’ নামে একটি ক্লিনিকে নিয়ে যান। সেখানে পল্লীচিকিৎসক বিজয় তাকে দেখেন এবং প্রেসক্রিপশনে ‘সিডিল’ লিখে সেটা আনতে বলেন।


তিনি বলেন, শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) মেয়ে আমাদের কাছে সবকিছু খুলে বলে। সে জানায়, ওইদিন আমি ওষুধের জন্য বাইরে গেলে বিজয় তাকে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করেন।

তবে পল্লীচিকিৎসক বিজয়কৃষ্ণ তালুকদার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই মেয়েটি আমার ক্লিনিকে এসেছিল তাকে চিকিৎসা দিয়েছি। এছাড়া অন্য কোনো ঘটনা ঘটেনি। তবে ওই মেয়ের পরিবারের সঙ্গে আমাদের জমি নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছে। আমি তাকে চিকিৎসা দিয়েছি তার পরিবারের সবাই আমার কাছে আসতো চিকিৎসার জন্য। মেয়ে ফুফুর কাছ থেকে কিছু অংশ জমি কেনা হয়। এই জমি নিয়ে তার সঙ্গে আমার বিরোধ চলছিল। এই বিরোধের কারণে তারা আমাকে ফাঁসানোর জন্য এ নাটক করছে।

দক্ষিণখান থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) শফিকুল গণি সাবু জানান, রাতে ওই ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে একটি মামলা করা হয় (মামলার নম্বর ৫৫)। এ মামলায় পল্লীচিকিৎসক বিজয়কে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই ছাত্রীকে রাত ১২টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। বিস্তারিত ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এডুকেশন বাংলা/একে

 

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর