বুধবার ২০ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:৪৭ এএম


ভর্তি পরীক্ষার আবর্জনা পরিষ্কারে ইবি ‘তারুণ্য’র পাঁচ ঘণ্টা

অনি আতিকুর রহমান, ইবি

প্রকাশিত: ২০:৫০, ৭ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০১:২৯, ৮ নভেম্বর ২০১৯

ভর্তি পরীক্ষা শেষ। তিনদিনের এই মহাযজ্ঞে প্রায় লক্ষাধিক মানুষের সমাগম হয়েছিলো ক্যাম্পাসে। কিন্তু এখন আর নেই। তবে ৭২ ঘন্টায় তারা যে আবর্জনাগুলো তৈরি করেছিলো তা ঠিকই রয়ে গেছে। ক্যাম্পাসে ঘুরতে গিয়ে সেসব আবর্জনার স্তুপ চোখে পড়ে ‘তারুণ্য’ সদস্যদের। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) এই আবর্জনা পরিচ্ছন্নতা’ অভিযান চালায় ক্যাম্পাসের সেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘তারুণ্য’র সদস্যরা।

এর আগে বুধবার (৬ অক্টোবর) শেষ হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা। 

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত প্রায় পাঁচ ঘন্টা ধরে আবর্জনা পরিস্কার করেছেন ‘তারুণ্য’ সদস্যরা। এসময় তারা ক্যাম্পাসস্থ ডায়না চত্ত্বর, কেন্দ্রীয় ক্রিকেট মাঠ, ফুটবল মাঠ, শহীদ মিনার, স্মৃতিসৌধ ও অনুষদ ভবন এলাকাসহ বিভিন্ন স্থানে পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালনা করেন।

সভাপতি শেখ রাইয়ান উদ্দিনের নেতৃত্বে এতে অংশ নেন সাবেক সভাপতি আরমান রেজা জয়, মীকাঈল, হাফিজুর, জুবায়ের রূপক, ওয়ালীউল্লাহ, তৌফিক, তোফাজ্জল পাটোয়ারীসহ অন্য সদস্যরা।

‘তারুণ্য’র সভাপতি শেখ রাইয়ান উদ্দিন বলেন, ‘ভর্তিপরীক্ষা চলাকালীন সময় যত্রতত্র পলিথিন, ঠোঙা, ডিমের খোসা, বোতলসহ বিভিন্ন আবর্জনায় ক্যাম্পাস অপরিচ্ছন্ন হয়ে উঠেছে। ফলে ক্যাম্পাসকে পরিস্কার করার লক্ষ্যে আমাদের এই উদ্যোগ।

মীকাঈল নামের এক সদস্য বলেন, আমরা নিজেরা যখন একটি কাগজ টুকরো টুকরো করে রাস্তায় ফেলি; তখন কিছু মনে হয় না। কিন্তু, আজ পরিস্কার অভিযানে নেমে বুঝলাম; এটি আসলে ঠিক নয়। কেননা, সচেতন শিক্ষার্থী হিসেবে পরবর্তীতে এটি তো আমাকেই পরিস্কার করতে হবে।’

উল্লেখ্য, ‘তারুণ্য’ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। ২০০৯ সাল থেকে সংগঠনটির সদস্যরা বিনামূল্যে রক্তদান, শীতবস্ত্র ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ, দরিদ্রদের সহায়তা প্রদান, শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার ও কর্মশালা আয়োজনসহ বিভিন্ন ইতিবাচক কর্মকা- পরিচালনা করে আসছে।

এডুকেশন বাংলা / এআর / এসআই