রবিবার ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ৪:৩১ এএম


বিনার জলমগ্ন সহিষ্ণু ধানের জাত বিনা-১১ উদ্ভাবন

আতিকুর রহমান, বাকৃবি

প্রকাশিত: ২০:০১, ২০ নভেম্বর ২০১৯  

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) অভ্যন্তরে অবস্থিত বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) জলমগ্ন সহিষ্ণু ধানের জাত বিনা-১১ উদ্ভাবন করেছে। ২০-২৫ দিন জলাবদ্ধ থাকার পরেও ধান উৎপাদনে সক্ষম এই জাতটি। দেশের জলবায়ুর পরিবর্তনের বিষয়টি মাথায় রেখে উদ্ভাবন করা হয় এই জাতটি।

বুধবার (২০ নভেম্বর) বিকেলে ময়মনসিংহের চরগোবাদিয়া গ্রামে একটি মাঠ দিবস পালনের মাধ্যমে বিনাধান-১১ এর উদ্ভাবনের বিষয়টি প্রকাশ করা হয়। বিনার ফলিত গবেষণা ও সম্প্রসারণ বিভাগ (এআরইডি) ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে বিনার প্রশিক্ষণ ও পরিকল্পনা শাখার পরিচালক ড. মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বিনার গবেষণা শাখার পরিচালক ড. হোসনে আরা বেগম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বিনার বিজ্ঞানী ড. মঞ্জুরুল আলম মন্ডল, ড. শামছুন্নাহার বেগম ও ময়মনসিংহের অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা সেলিনা পারভিন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিনা বিজ্ঞানী মো. ইমদাদুল হক। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন বিনা বিজ্ঞানী মো. আব্দুর রউফ। অনুষ্ঠানের শেষে কৃষকদের মাঝে বিনা শস্য ৪ ও ৯ বিতরণ করা হয়।

এসময় উপস্থিত কৃষকদের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, কৃষির উৎকর্ষ সাধনই বিনার একমাত্র উদ্দেশ্য। এখান থেকে সেবা নিয়ে উপকৃত হলেই আমাদের গবেষণা সার্থক হবে। উদ্ভাবিত ধান বিনা-১১ একটি আগাম জলমগ্ন সহিষ্ণু ধানের জাত। দীর্ঘ পাঁচ বছর গবেষণার পর এটা মাঠ পর্যায়ে সম্প্রসারণ করা হয়েছে। ১১০-১২০ দিনে ফসল ঘরে তুলা সম্ভব। এই জাতটিতে রোগবালাইয়ে আক্রমণের হার কম। উৎপাদনও আশানুরুপ, প্রতি একরে ৪৫-৫৫ মন।

এডুকেশন/এআর/কেআর

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর