বুধবার ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৫:৩১ পিএম


বদলে যাচ্ছে ভাঙ্গার মাদ্রাসাগুলো

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১১:১৪, ৮ আগস্ট ২০১৯  

ভাঙ্গায় অনেক মাদ্রাসা যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি আধুনিক যুগোপযোগী শিক্ষার দিকে ধাবিত হচ্ছে। বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষা ছাড়াও ল্যাব স্থাপন, আইসিটি সুবিধা, বিতর্ক প্রতিযোগিতাসহ নিয়মিত সাংস্কৃতিক ও খেলাধুলার চর্চা করা হচ্ছে এসব মাদ্রাসায়। এমনকি সৃজনশীল কর্মে সাধারণ শিক্ষার শিক্ষার্থীদের চেয়ে অনেকক্ষত্রে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা এগিয়ে রয়েছে। অনেকক্ষেত্রে বর্তমান প্রজন্মের সাধারণ শিক্ষার্থীরা নৈতিক ও মূল্যবোধ বিবর্জিত হয়ে সমাজে মারাত্মক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে: সেখানে আধুনিক মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা সমাজের মডেল হতে পারে।

ভাঙ্গা উপজেলায় মোট ১৩টি মাদ্রাসা রয়েছে। এর মধ্যে ১০টি দাখিল মাদ্রাসা, ১টি ফাজিল মাদ্রাসা, এবং ১টি কামিল মাদ্রাসা রয়েছে। এ ছাড়া ৫টি এবতেদায়ী মাদ্রাসাসহ বেশ কিছু কওমি মাদ্রাসাও রয়েছে। কওমি মাদ্রাসাগুলোও পুরনো ধারা থেকে বেরিয়ে এসে মাতৃভাষাসহ বিজ্ঞান শিক্ষাও চালু করছে। উপজেলায় বেশির ভাগ মাদ্রাসাই স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় এগিয়ে চলেছে।

এর মধ্যে মাদ্রাসা শিক্ষার ক্ষেত্রে আলোকবর্তিকা হিসেবে রয়েছে ইকামাতে দ্বীন মডেল কামিল মাদ্রাসা। ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে পল্লীবেড়া গ্রামে ১৯৯১ সালে স্থাপিত হয় ইকামাতেদ্বীন মডেল কামিল মাদ্রাসা। সময়ের বিবর্তনে মাদ্রাসাটি দাখিল থেকে এখন কামিল পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে।

শিক্ষকদের দাবি, মাদ্রাসাটিতে, পাঠাগার, সায়েন্সের যন্ত্রপাতি, একাধিক কম্পিউটার ল্যাবসহ আধুনিক শিক্ষার সব ধরনের সুবিধা রয়েছে। যা শিক্ষার্থীদের ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি বিজ্ঞানভিত্তিক আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করছে। অপরদিকে মাদ্রাসাটিতে রয়েছে দক্ষ শিক্ষকমণ্ডলী এবং শতভাগ সাফল্য। মাদ্রাসাটিকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে যার বেশিরভাগ কৃতিত্ব মাদ্রাসাটির অধ্যক্ষ আবু ইউসুফ মৃধার। তিনি এ মাদ্রাসায় যোগদানের পর থেকে বদলে যায় শিক্ষার পরিবেশ।

মাদ্রাসা গভর্নিং বোর্ডের সভাপতি আছাদুজ্জামান বলেন, নানা সুবিধা দিয়ে শিক্ষার্থীদের আকৃষ্ট করা হচ্ছে মাদ্রাসা শিক্ষায়। এতে পরিবর্তিত হচ্ছে মাদ্রাসা শিক্ষার গুণগত মানের। অপরদিকে উপজেলার তারাইল এ.এস ফাজিল মাদ্রাসা, চান্দ্রা দাখিল মাদ্রাসা, রশিবপুরা দাখিল মাদ্রাসাসহ সমানতালে আধুনিক শিক্ষায় ধাবিত হচ্ছে। স্থানীয়দের দাবি, গ্রত্যন্ত অঞ্চলে স্থাপিত মাদ্রাসায় শিক্ষা নিয়ে শিক্ষিত হচ্ছে গ্রামের শিক্ষার্থীরা। এতে বাড়ছে শিক্ষার হার। তারা এসব মাদ্রাসার সাফল্য কামনা করেন।

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর