বৃহস্পতিবার ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১১:২৬ এএম


প্রভাষকদের প্রতি বৈষম্যমূলক নীতি

মনির হোসাইন

প্রকাশিত: ০৮:১৬, ২৫ জুলাই ২০১৯  

শিক্ষাব্যবস্থাকে যুগোপযোগী করতে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার গুণগতমান বৃদ্ধির জন্য এমপিও নীতিমালা ২০১৮-তে শিক্ষক ও অন্যান্য পদে জনবল বাড়ানো হয়েছে, যা ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে বলে বিশ্বাস করি। সেইসঙ্গে শিক্ষকদের বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট ও বৈশাখিভাতা প্রদান করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাই।

কিন্তু এমপিওনীতি ২০১৮-তে প্রথম ও সর্বশেষ ১১ জুলাই ২০১৯-তে প্রভাষকদের প্রতি ১০ বছর পর ৯ম গ্রেড থেকে ৮ম গ্রেড, যা মাত্র ১০০০ টাকা বৃদ্ধির বিধান করা হয়েছে। অথচ সহকারী শিক্ষকরাও ১০ বছর পর বিএড বিহীন ৩৫০০ টাকা ও বিএড প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষকগণ ৬০০০ টাকা বাড়ছে। এ অবস্থায়, প্রভাষকগণ চরম বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। তাই প্রভাষকদের এই বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ১০ বছর পর গ্রেড ৯ম থেকে ৭ম (যা আগে ছিল) গ্রেড প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে বিনীত আবেদন জানাচ্ছি।

প্রভাষক (আরবি), হরিণারায়ণপুর জে. ইউ সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা, লাখপুর, মনোহরদী, নরসিংদী

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর