বুধবার ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:৫৪ পিএম


প্রবেশসীমা বাড়ানোর দাবিতে অনশনে যাচ্ছে চাকরি প্রার্থীরা

নিজস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০০:৫৪, ২৩ অক্টোবর ২০১৯  

প্রবেশসীমা বাড়ানোর দাবিতে অনশনে যাচ্ছে চাকরি প্রার্থীরা চাকরিতে প্রবেশসীমা ৩৫ বছর করাসহ চার দাবিতে আগামী বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় রাজধানীর শাহবাগে মহাসমাবশ ও শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) গণঅনশনে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্রকল্যাণ পরিষদ। গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিকে তারা এ তথ্য জানিয়েছে।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্রকল্যাণ পরিষদের অন্য চার দাবি হলো- যে কোনো চাকরির আবেদন ফি ৫০ টাকা থেকে ১০০ টাকা নির্ধারণ করা। নিয়োগ পরীক্ষা জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে নেওয়া। তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা।

বয়স বাড়ানোর বিষয়ে জাতীয় সংসদেও বহুবার আলোচনা হয়েছে। নবম ও দশম জাতীয় সংসদের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়ানোর বিষয়ে সুপারিশও করেছিল। এ বছরের ২৫ এপ্রিল সরকারি চাকরিতে আবেদনের বয়স ৩৫ বছরে উন্নীত করতে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য রেজাউল করিম জাতীয় সংসদে একটি বেসরকারি সিদ্ধান্ত প্রস্তাব উত্থাপন করেন। প্রস্তাবটি কণ্ঠভোটে প্রত্যাখ্যাত হয়।

ঐ স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছিলেন, সরকারি চাকরিতে প্রবেশ ও অবসরের বর্তমান বয়সসীমাকে সবদিক বিবেচনায় সরকার যৌক্তিক মনে করছে। চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়ানোর প্রস্তাব এনে সংসদ অধিবেশনে রেজাউল করিম বলেন, বিশ্বের ১৯২টি দেশের মধ্যে ১৫৫টি দেশে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৫৫ বছর কোথাও কোথাও ৫৯ বছর পর্যন্ত। দেশে এখন শিতি বেকার ২৮ লাখের বেশি। 

বেকার পরিবারের জন্য বোঝা। শিক্ষার্থীরা সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের জন্য আন্দোলন করেছিলেন। তাঁদের সে সময় রাজাকার, শিবির, জঙ্গি বানানোর চেষ্টা হয়েছিল। এখন চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়ানোর জন্য আন্দোলন করছেন। চাকরি না পেয়ে অনেক যুবক মাদক, ছিনতাই ও অন্যান্য সামাজিক অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছেন। শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর করা উচিত হবে।

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর