রবিবার ২৯ মার্চ, ২০২০ ১২:৪১ পিএম


পিএসসিতে কোড অন্তর্ভূক্তির দাবিতে আমরণ অনশনের হুঁশিয়ারি

রাবি প্রতিনিধি:

প্রকাশিত: ১৮:৫৬, ২৮ জানুয়ারি ২০২০  

বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের বিষয়কোড অন্তর্ভূক্তির দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছেন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। শীঘ্রই বিষয়টির সমাধান না হলে তারা আমরণ অনশন কর্মসূচি করবেন বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সামনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এ হুশিয়ারি দেন।


সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শিক্ষার্থীরা বলেন, জনসংখ্যা সমস্যার উত্তোরণ এবং দক্ষ মানব সম্পদ তৈরীর লক্ষ্যে ১৯৯৬ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এ বিভাগটি চালু হয়। বর্তমানে এ বিভাগে প্রায় ৩ শত শিক্ষার্থী রয়েছে। বিভাগ প্রতিষ্ঠার ২৪ বছরেও পিএসসিতে বিষয়কোড অন্তর্ভূক্ত হয়নি। বিষয়কোড না থাকায় আমরা বিভিন্নভাবে বৈষম্যের শিকার হচ্ছি। বিসিএস’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বিভাগের শিক্ষার্থীদের বিভাগ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাক্ষরযুক্ত দরখাস্ত নিয়ে পিএসসিতে প্রমাণ করতে হয় রাবিতে পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট নামের একটি বিভাগ আছে। পিএসসি অধীনন্থ উচ্চ বিদ্যালয়ের নন-ক্যাডার পদগুলোতে আমরা যেতে পারি না। নন-ক্যাডার পদগুলোতে তালিকায় প্রথম হয়েও আমরা বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, অধিদফতরে চাকরি করতে পারি না। এছাড়া দেশের সবচেয়ে সহজলভ্য গবেষণা সহযোগিতা প্রকল্প ‘জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ফেলোশিপ’ থেকেও বঞ্চিত হতে হচ্ছে।

শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে বিষয়কোডের দাবি জানিয়ে আসছি। কিন্তু কেবল আশ্বাস ছাড়া কিছুই পাইনি। বিষয়কোড অন্তর্ভূক্তির দাবিতে গত ১৯ জানুয়ারি বিভাগের সকল ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে আমরা আন্দোলন করে আসছি। আগামীকাল বুধবার থেকে স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু ও সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসনিক ভবনের সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি পালন করবো। এরপরও কোন সমাধান না হলে পরবর্তী ৬ কার্যদিবস পরে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে আমরণ অমশন কর্মসূচিতে যেতে বাধ্য হবো।

জানতে চাইলে পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের সভাপতি নজরুল ইসলাম ম-ল বলেন, বিষয়কোডের জন্য আমরা পিএসসিতে গিয়ে আবেদন করেছিলাম। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সুপারিশসহ প্রয়োজনীয় বিভিন্ন তথ্য আমরা সেখানে জমা দিয়েছি। এ নিয়ে পিএসসি একটি কমিটিও গঠন করে। বিষয়টি যাচাই করতে ইউজিসি থেকে একটি টিমও বিশ্ববিদ্যালয়ে আসে। বিষয়টি একটি প্রক্রিয়াধীন ব্যাপার। একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই বিষয়টির সমাধান করা হবে। পরবর্তী বিসিএস পরীক্ষার সার্কুলারে বিষয়কোড অন্তর্ভূক্ত করা হবে বলে পিএসসি আমাদের আশ্বস্ত করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী এমএস সোহাগ হাসান, তরিকুল ইসলাম, কে এম বারকুল্লাহ, দিলরুবা ইয়াসমিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এডুকেশন বাংলা / এসআই

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর