সোমবার ১৯ আগস্ট, ২০১৯ ৯:২৪ এএম


‘নুসরাতের ভাইকে চাকরি দিলেই ন্যায়বিচার হবে না’

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:০৯, ২৪ এপ্রিল ২০১৯  

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস বলেছেন, `দেশে এখন গণতন্ত্র নেই, আছে শুধু ধর্ষণ ও হত্যাতন্ত্র। দেশে খুন, ধর্ষণ ও গুমের বিচার এখন হয় না। দেশে বিচারহীন সংস্কৃতির কারণে খুন, ধর্ষণ ও গুম বেড়ে গেছে। দেশে যদি ন্যায়বিচার থাকত, একটি ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের বিচার হতো, তাহলে নুসরাতকে আগুনে পুড়ে জীবন দিতে হতো না।`

বুধবার দুপুরে সোনাগাজী উপজেলা মহিলা দলের আয়োজনে সোনাগাজী বাজারের জিরোপয়েন্টে এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

আফরোজা আব্বাস বলেন, নারী-শিশু ধর্ষকদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না। অনেক হয়েছে, মনে রাখবেন আল্লাহ সীমা লঙ্ঘনকারীদের পছন্দ করেন না। নুসরাতের খুনিদের শুধু গ্রেফতার করলে হবে না। তার পরিবারকে টাকা দিলে, তার ভাইকে চাকরি দিলেই ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হবে না। তার খুনিদেরকে ধরে প্রকাশ্যে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করতে হবে। যতক্ষণ খুনিদের মৃত্যু নিশ্চিত না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এ সরকার বলেছে- সরকার নারী সরকার অথচ এই সরকারের আমলেই সবচেয়ে বেশি নারী ধর্ষিত আর নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে। মিথ্যা মামলায় আমাদের কারাবন্দি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের নির্দেশে আমরা দেশব্যাপী নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সোচ্চার ভূমিকা পালন করে যাচ্ছি। আমাদের নেতাদের নির্দেশ যেখানে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে, সেখানে যেন মহিলা দলের নেতাকর্মীরা ঝাঁপিয়ে পড়েন।

ফেনী জেলা মহিলা দলের সভানেত্রী জুলেখা আক্তারের সভাপতিত্বে ও সহসভানেত্রী জান্নাতুল ফেরদাউস মিতার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় মহিলা দলের সহসভানেত্রী নেওয়াজ হালিমা আর্নি, সাধারণ সম্পাদিকা সুলতানা আহম্মদ, যুগ্ম সম্পাদিকা অ্যাডভোকেট শাহানা আক্তার শানু, বেগম ফাতেমা বাদশা, প্রচার সম্পাদিকা নাজনীন মাহমুদ, চট্টগ্রাম মহিলা দলের সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম মণি, সহসভানেত্রী জেসমিনা খানম, শাহীদা বেগম, সাধারণ সম্পাদিকা জেলী চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদিকা আঁখি সুলতানা, জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু তাহের, সাধারণ সম্পাদক জিয়া উদ্দিন মিস্টার, প্রচার সম্পাদক গাজী হাবিব উল্যাহ মানিক প্রমুখ।

আরও উপস্থিত ছিলেন সোনাগাজী উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. গিয়াস উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন সেন্টু, পৌর বিএনপির সভাপতি আবুল মোবারক ভিপি দুলাল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহভাপতি সৈয়দ আলম ভূঞা, উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক খুরশিদ আলম ভূঞা, উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক হাসান মাহমুদসহ বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী।

দুপুর ১২টায় মানববন্ধন শেষে তারা পৌর এলাকার উত্তর চরচান্দিয়া গ্রামের নুসরাতের বাড়িতে গিয়ে নুসরাতের মাসহ পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান আফরোজা আব্বাস। মীর্জা আব্বাসের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে নুসরাতের পরিবারকে এক লাখ টাকা ও সৌদি আরব রিয়াদ বিএনপির পক্ষ থেকে ৪০ হাজার টাকার অনুদান তুলে দেন স্ত্রী আফরোজা আব্বাস।

এডুকেশন বাংলা/একে

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর