শনিবার ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ৭:১৯ এএম


দ্রুতই সরকারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করবেন ননএমপিও শিক্ষক নেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১২:৪২, ২৮ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ২১:১১, ২৮ অক্টোবর ২০১৯

গত ২৩ অক্টোবর এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রকাশ করা হলো। তালিকায় যেসব প্রতিষ্ঠানের তালিকা আছে সেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারিরা আন্দোলন কর্মসূচি থেকে মুক্তি পেলো । আর যাদের প্রতিষ্ঠান তালিকায় নেই তারা এখন কি করবেন? সঙ্গত কারণেই এমপিওবঞ্চিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারিরা এখন তাকিয়ে আছে নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের নেতাদের দিকে। কারণ সর্বশেষ এই সংগঠনের ব্যনারেই স্বীকৃিত সব প্রতিষ্ঠান একযোগে এমপিও করার আন্দোলন কর্মসূচি পরিচালিত হয়ে আসছিলো।

এমপিওভুক্তি ঘোষণার কয়েকদিন পূর্বে সংগঠনটি প্রথমে টানা ৩ দিন অবস্থান কর্মসূচি পর আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করে। পরে শিক্ষামন্ত্রীর সাথে বৈঠকে বর্তমান নীতিমালা সংশোধন এবং এমপিওপ্রাপ্তির আশ্বাস পেয়ে অনশন কর্মসূচি বাতিল করেন।

মূলত বর্তমান পরিস্থিতিতে এই ফেডারেশনের ভূমিকার উপরই নির্ভর করছে কত দ্রুত বর্তমান এমপিও নীতিমালা সংশোধন করে আবার এমপিওভুক্তি কার্যক্রম শুরু হবে।

নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভূষণ রায় এডুকেশন বাংলা`কে বলেন,যারা এমপিওভুক্ত হয়েছে তাদের অভিনন্দন জানাই। আর যারা এমপিওভুক্ত হতে পারেনি তাদের প্রতি সমবেদনা জানাই আশা করছি সরকার দ্রুত নীতিমালা সংশোধন করে বাদ পড়া প্রতিষ্ঠানগুলো এমপিওভুক্ত করে শিক্ষকদের কষ্ট লাঘব করবে।

এডুকেশন বাংলার এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকার যে কাজ করেছে ত্রুটিমুক্ত হলে সাধুবাদ জানাই। তবে যে প্রক্রিয়ায় এমপিও দেয়া হয়েছে সেটা ত্রুটিমুক্ত কিনা সরকার ভাল বলতে পারবে। তিনি জানান আমরা দ্রুতই সরকারের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করবো।

উল্লেখ্য, শিক্ষামন্ত্রী নন এমপিও শিক্ষক নেতাদের সাথে এক বৈঠকে বলেছিলেন বর্তমান এমপিওপ্রক্রিয়া শেষ করেই তাদের সাথে বসবেন এবং নীতিমালা সংশোধনের কার্যক্রম শুরু করবেন।


এডুকেশন বাংলা/এজেড

 

 

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর