সোমবার ২১ অক্টোবর, ২০১৯ ৩:০৬ এএম


দুই শিক্ষককে আ. লীগ নেতার মারধর

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১০:০৫, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় শিক্ষার্থীকে থাপ্পড় দেওয়ার জেরে ছোট বিশাকোল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। আওয়ামী লীগ নেতা নবীর উদ্দীন ও তাঁর লোকজন এ কাজ করেছে বলে অভিযোগ।

এ সময় দুই শিক্ষককে অন্তত এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। পরে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় তাঁরা মুক্ত হন। গত শুক্রবার রাতে ছোট বিশাকোল বাজারে ঘটনাটি ঘটে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী শিক্ষকরা রাতেই থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ক্লাসে বেয়াদবির কারণে গত ১৯ সেপ্টেম্বর ছোট বিশাকোল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ইমন হোসেনকে থাপ্পড় মারেন প্রধান শিক্ষক আব্দুল মজিদ। এতে ইমন অসুস্থ হয়ে পড়লে তার পরিবার প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। পরে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ উপজেলার অন্য স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের মধ্যস্থতায় বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে অষ্টমনিষা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নবীর উদ্দীন এবং দুলাল মেম্বার ও আব্দুল কুদ্দুসের সঙ্গে প্রধান শিক্ষকের ঝামেলা মিটছিল না। শুক্রবার রাতে নবীর, দুলাল ও কুদ্দুস তাঁদের লোকজন নিয়ে ছোট বিশাকোল বাজারে চায়ের দোকানে প্রধান শিক্ষক মজিদ ও সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদকে মারধর করেন। পরে দুই শিক্ষককে অন্তত এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখেন তাঁরা। একপর্যায়ে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় শিক্ষকরা মুক্ত হন।

এ ঘটনায় রাতেই তাঁরা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। আহত সামাদকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

তবে অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা নবীরের দাবি, ‘একটু ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে।’ ভাঙ্গুড়া থানার ডিউটি অফিসার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রফিক বলেন, ‘তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর