বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট, ২০১৯ ১৯:১০ পিএম


ডাকসু ভিপি নুরের ওপর হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৭:১১, ১৫ আগস্ট ২০১৯  

পটুয়াখালীর গলাচিপায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি নুরুল হক নুরের মোটরসাইকেলবহরে হামলা হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলার উলানিয়া বন্দরে এ হামলায় নুরসহ চার-পাঁচজন আহত হয়েছে। পরে নুরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয় তাঁর সফরসঙ্গীরা।

স্থানীয় যুবলীগের এক নেতা জানান, গতকাল দুপুরে গ্রামের বাড়ি উপজেলার চরবিশ্বাস থেকে ট্রলারযোগে বদনাতলী ঘাটে আসেন নূর। তিনি মোটরসাইকেলবহর নিয়ে দশমিনা উপজেলায় বোনের বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশে যাত্রা করেন। পথে উলানিয়া বন্দরের চৌরাস্তায় পৌঁছলে মোটরসাইকেলবহরে হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। এ সময় ঘটনাস্থলসংলগ্ন পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা আক্রমণকারীদের সরিয়ে দেন। একপর্যায়ে নুর একটি দোকানে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। খবর পেয়ে এএসপি (সার্কেল) মো. হাফিজুর রহমান ও গলাচিপা থানার ওসি আখতার মোর্শেদ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেন।

হামলায় নুরের শরীরের কয়েকটি স্থানে হালকা আঘাতের চিহ্ন দেখার কথা জানিয়েছেন এক প্রত্যক্ষদর্শী। এ বিষয়ে জানতে নুরের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে ফোন রিসিভ করেন নুরের বন্ধু রুবেল। তিনি বলেন, ‘নুর অসুস্থ, কথা বলতে পারছে না। আমরা উলানিয়া বন্দরে পৌঁছলে আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালানো হয়। এ হামলায় ছাত্রলীগ, যুবলীগের নেতাকর্মীরা জড়িত।’

জানতে চাইলে গলাচিপা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরীফ আহমেদ আসিফ বলেন, ‘নুরের আহত হওয়ার খবর শুনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে যায়। সেখান থেকে নুরকে হাসপাতালে নিতে পুলিশকে সহযোগিতা করি আমরা। এ ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগের কেউ জড়িত নেই।’

গলাচিপা থানার ওসি আখতার মোর্শেদ বলেন, ‘নুর তার বোনের বাড়ি দশমিনা যাচ্ছিল। এ সময় দশমিনা-গলাচিপা থেকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্যের বাড়িতে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করতে যাচ্ছিল। দুই দিক থেকে গাড়ি আসতে দেখে নুর ভয়ে পালানোর চেষ্টা করে। পরে তাকে গ্রামের বাড়ি চরবিশ্বাসে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।’


এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর