রবিবার ০৫ এপ্রিল, ২০২০ ০:৩৬ এএম


টিউশনি করা জয়লক্ষ্মীর নাসায় যাওয়ার সুযোগ এলো যেভাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৯:০১, ২০ ডিসেম্বর ২০১৯  

বাবা বাড়িতে থাকেন না। তাই বাদাম বিক্রি আর টিউশনি করে সংসার চালায় মেয়েটি। পাশাপাশি মানসিক রোগী মা এবং ছোটো ভাইয়েরও দেখাশুনা করতে হয় তাকে। ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের এই মেয়েটির নাম জয়লক্ষ্মী। জীবনের চলার পথ কঠিন জেনেও সে কখনো থেমে থাকেনি। আর সে কারণেই সুযোগ এসে ধরা দিয়েছে তার কাছে। যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসায় পাড়ি দিতে চলেছে সে।

ছোটোবেলা থেকেই বিজ্ঞানপ্রিয় বিষয় জয়লক্ষ্মীর। ছোটো থেকেই ইচ্ছা ছিল পরমাণুবিজ্ঞানী এবং ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালামের মতো হবে সে। অভাব-অনটন থাকলেও নিজের স্বপ্ন থেকে সে কখনো পিছপা হয়নি। এবার সম্পূর্ণ নিজের চেষ্টাতেই তার সেই মনস্কামনা পূর্ণ হতে চলেছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ২০২০ সালের মে মাসে নাসায় যাচ্ছে সে। কিন্তু কিভাবে এলো এই সুযোগ ? জয়লক্ষ্মী জানায়,‘একদিন হঠাত্ করেই কাগজের একটা খবরে চোখ আটকে যায়। একটি সংস্থা নাসা যাওয়ার জন্য সব শিক্ষার্থীকে সুযোগ দিতে একটা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। খবরটা দেখেই আর বসে থাকতে পারিনি আমি। সব কাজ ফেলে দৌড়ে বাড়ি গিয়ে প্রতিযোগিতার জন্য ফরম ফিলআপ করি। নিজের মতো করে বাড়িতেই প্রস্তুতি নিতে থাকি। আর সেই পরীক্ষায় সফলও হই।’ তাতেও অবশ্য সব সমস্যার সমাধান হয়নি। সমস্যা এবার অন্য জায়গায়। নাসায় ঢোকার টিকিট তো পেয়ে গেছে, কিন্তু যাতায়াত খরচ! সেও তো অনেক টাকা। কয়েকজন শিক্ষক আর তার সহপাঠীরা মিলে পাসপোর্ট বানিয়ে দিয়েছে তার। পাসপোর্ট অফিসারও তাকে কিছু টাকা দিয়ে সাহায্য করেছেন। কিন্তু সেটাও যথেষ্ট নয়। এরপর সাহায্যের জন্য হাত বাড়ায় সে। ওএনজিসির কর্মচারীরা মিলে তার হাতে তুলে দেয় ৬৫ হাজার টাকা। এছাড়া আরো বেশকিছু জনের সহায়তায় ৬০ হাজার টাকার সাহায্য পায় মেয়েটি। তবে এখনো প্রয়োজন ৭০ হাজার টাকা। জয়লক্ষ্মী বলে, ‘আমি সকলের কাছে কৃতজ্ঞ। যারা আমার স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করতে সাহায্য করছে। ’

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর