বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৫২ এএম


জেডিসি পরীক্ষার্থীকে ২৫ দিন আটকে রেখে দল বেঁধে ধর্ষণ!

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা

প্রকাশিত: ০৮:০৭, ২ নভেম্বর ২০১৯  

ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানার কলুরগাঁও গ্রামের এক দিনমজুরের জেডিসি পরিক্ষার্থী কন্যাকে (১৩) বাড়ি থেকে অপহরণ করে নিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে আটকে রেখে ২৫ দিন ধরে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার ভোরে অচেতন অবস্থায় স্থানীয় দাইরগাঁও মাদ্রাসার সামনে থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

ভুক্তভোগীর পরিবার ও পাগলা থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দাইরগাঁও দাখিল মাদ্রাসার জেডিসি পরিক্ষার্থী ঐ ছাত্রীকে মাদ্রাসায় আসা-যাওয়ার পথে উত্ত্যক্ত করতো একই গ্রামের দুই সন্তানের জনক বিপ্লব মেকার (৪৪)।

বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানালে ছাত্রীর বাবা বিপ্লব মেকারকে তার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতে নিষেধ করেন। এতে বিপ্লব ক্ষিপ্ত হয়ে ঐ ছাত্রীকে অপহরণের হুমকি দেয়।

একপর্যায়ে গত ৬ অক্টোবর সন্ধ্যায় একটি সিএনজি নিয়ে বিপ্লব মেকার, ওয়াশির খাঁ (২৬) ও শারফুল শেখ (২৫) ছাত্রীর বাড়িতে অতর্কিতে এসে তাকে জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যায়। ঘটনার পরপরই ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পাগলা থানা পুলিশকে মৌখিকভাবে জানানো হয়। এ বিষয়ে পাগলা থানায় একটি জিডিও করা হয়।

ভুক্তভোগী ছাত্রী তার পরিবারকে জানিয়েছে, ধর্ষকদল তাকে রাজধানীর ঢাকা, জেলা শহর ময়মনসিংহের বিভিন্ন স্থানে আটকে রেখে পালাক্রমে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। পরে শুক্রবার ভোরে তাকে দাইরগাঁও মাদ্রাসার সামনে প্রায় অচেতন অবস্থায় ফেলে রেখে যায়।

এ ব্যাপারে ছাত্রীর বাবা বলেন, ‘আমি অসহায়, টাকা-পয়সা নাই, কিন্তু আমার মেয়ের ধর্ষণের বিচার চাই। তাদের নামে আগেও নারী নির্যাতনের মামলা আছে। তারা প্রভাবশালী, তাদের কেউ কিছু করতে পারে না।’

পাগলা থানার ওসি মো. শাহিনুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি এবং জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ভিকটিমকে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর