রবিবার ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ১৬:০৮ পিএম


চুয়েটে আর্ন্তজাতিক কনফারেন্স শুরু

চুয়েট প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৭:২৩, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯  

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) যন্ত্রকৌশল বিভাগের আয়োজনে তিনদিনব্যাপী “5th International Conference on Mechanical Engineering and Renewable Energy (ICMERE-2019) শীর্ষক আন্তর্জাতিক কনফারেন্স শুরু হয়েছে।

বুধবার (১১ ডিসেম্বর) সকাল ১১:০০ টায় চুয়েট কাউন্সিল কক্ষে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের মাননীয় সদস্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আলমগীর। এছাড়া চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বিশেষ অতিথি হিসাবে এবং জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব মোহাম্মদ আলমাস শিমুল আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আলমগীর বলেন, শিক্ষা-গবেষণা প্রধান লক্ষ্য হতে হবে মানবজাতির কল্যাণ। এই কল্যাণ বয়ে আনতে তরুণ প্রকৌশলীদের ভূমিকা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে যন্ত্রকৌশল বিষয়ে গবেষকদের ভূমিকা আরো বেশি গুরুত্ববহ। কারণ, বাংলাদেশ কৃষিভিত্তিক অর্থনীতি থেকে এখন শিল্পভিত্তিক অর্থনীতিতে যাচ্ছে। আমরা দেখতে পাই, ১০ বছর আগেও যন্ত্রকৌশল বিভাগ শিক্ষার্থীদের প্রথম পছন্দ ছিল না। এখন সেই যন্ত্রকৌশলই প্রথম পছন্দে চলে আসছে ক্রমেই। এটা শুধু বাংলাদেশে নয়, সারাবিশ্বেই যন্ত্রকৌশলের সমাদর হচ্ছে। যন্ত্রকৌশলের মাধ্যমে সমাজ ও জগতে গুণগত পরিবর্তন হচ্ছে। আমরা এখন বিশ্বাস করি যে, রোবট এখন সবকিছু করতে পারে। এছাড়া নবায়নযোগ্য জ্বালানির বিষয়টিও বিশ্বজুড়ে প্রাধাণ্য পাচ্ছে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশেও নবায়নযোগ্য জ্বালানির অনেক উৎস আছে। হয়তো সব উৎস আমরা জানি না। অথবা সব উৎসের ব্যবহার জানি না। তাই লক্ষ্য নির্ধারণ করে কাজ করতে হবে। টেকসই উন্নয়নের জন্য কাজ করে যেতে হবে। এসবের জন্য চুয়েটের এই কনফারেন্স অত্যন্ত সময়োপযোগী। এর মাধ্যমে বিনিময়ের সুযোগ এসেছে, নিজেকে সমৃদ্ধ করার প্লাটফর্ম তৈরি হয়েছে। মনে রাখতে হবে, ইক্যুইপমেন্টের চেয়ে কমিটমেন্ট বড়। ১৯৭১ সালে পাক বাহিনীর হাতে বড় ইক্যুইপমেন্ট থাকলেও তারা আমাদের কমিটমেন্টের হাতে পরাজিত হয়। তাই এখানেও সকলকে টেকসই উন্নয়ন ও মানবজাতির বৃহত্তর কল্যাণে কাজ করে যেতে হবে।

বিশেষ অতিথি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত নানা বিপদের সম্মুখীন সারাবিশ্ব। বাংলাদেশও এর বাইরে নয়। তাই নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহারসহ পরিবেশ বান্ধব প্রযুক্তির বিষয়ে নিরন্তর কাজ করে যেতে হবে। চুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগের এই কনফারেন্স এসব বিষয়ে গবেষণা ও প্রয়োগের ক্ষেত্রে গাইডলাইন তৈরি করে দিবে বলে আমার বিশ্বাস।

আমন্ত্রিত অতিথি জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব মোহাম্মদ আলমাস শিমুল বলেন, সৃজনশীল গবেষণার মাধ্যমে দেশ ও জগত এগিয়ে যায়। নতুন জ্ঞান সৃষ্টি এবং গবেষণা বিনিময়ের জন্য এই আর্ন্তজাতিক কনফারেন্স অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। জিপিএইচ ইস্পাত চুয়েটের এই আর্ন্তজাতিক প্লাটফরমের সাথে থাকতে পেরে আনন্দিত।

কনফারেন্সের চেয়ারম্যান এবং চুয়েটের যন্ত্রকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহম্মদের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কনফারেন্স সেক্রেটারি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক ড. মো: মোস্তাফিজুর রহমান এবং চুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগের প্রধান ড. শেখ মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন যন্ত্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী মো: আকিফ কাদের ও অদিতি বড়ুয়া।

এবারের কনফারেন্সে বাংলাদেশ ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, চীন, কানাডা, দক্ষিন কোরিয়া, ভারত, মালয়েশিয়াসহ পৃথিবীর প্রায় ১০টি দেশ থেকে আগত যন্ত্রকৌশল বিষয়ের অন্তত তিন শতাধিক শিক্ষক, গবেষক, বিজ্ঞানী, প্রফেশনাল এবং উদ্যোক্তাগণ অংশ নিচ্ছেন। উক্ত কনফারেন্সে যন্ত্রকৌশল বিষয়ের পাশাপাশি নবায়নযোগ্য জ্বালানি সর্ম্পকিত তথা বর্তমান বিশ্বের আলোচিত ইস্যু “নবায়নযোগ্য জ্বালানি ও টেকসই উন্নয়ন” বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রবন্ধসমূহ উপস্থাপিত হচ্ছে।

এবারের কনফারেন্সে ১২টি টেকনিক্যাল সেশনে মোট ১৬৪ টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হচ্ছে। কনফারেন্সের প্রথমদিন কী-নোট স্পীকার হিসেবে প্রথম পর্বে “Solar Thermal Power with Energy Storage – A Pathway to Combat Global Warming” শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন- Prof. Dr. Muhammad Mustafizur Rahman. দ্বিতীয় পর্বে “Insights on UAV development for multifaceted industrial applications” শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন- Dr Balasubramanian Esakki তৃতীয় পর্বে “Mechanical Characterization of Biovesicles- A connection between Biology, Engineering and Medicine” শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন- Prof. Dr. Prashanta Dutta. অন্যদিকে দ্বিতীয়দিনে প্রথম পর্বে কী-নোট স্পীকার হিসেবে “Implementation of Hydrogen Economy in Bangladesh” শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন- Dr. Md. Abdus Salam . দ্বিতীয় পর্বে “Global Energy and the Role of Nuclear Power” শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন- Prof. Dr. M. A. Sarkar. এছাড়া প্রতিদিন চারটি করে পৃথক টেকনিক্যাল সেশন অনুষ্ঠিত হবে।

কনফারেন্সের সমাপনী অনুষ্ঠান নগরীর হোটেল লর্ডস-এ অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। এতে সভাপতিত্ব করবেন ICMERE 2019 এর টেকনিক্যাল কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র বনিক।

এডুকেশন বাংলা/ এমআর

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর