শুক্রবার ১০ এপ্রিল, ২০২০ ৪:৫০ এএম


চাওয়ালা থেকে মেয়র প্রার্থী আতিক এবার ক্রিকেটার

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬:২২, ২৪ জানুয়ারি ২০২০  

ভোটের প্রচারে চাওয়ালার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে কয়েকদিন আগে আলোচনায় আসা ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলামকে এবার দেখা গেল ক্রিকেটারের ভূমিকায়।

শুক্রবার সকালে গুলশান ইয়ুথ ক্লাব মাঠে আয়োজিত দ্বিতীয় বিভাগের একটি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যান উত্তরের সাবেক মেয়র আতিকুল। সেখানে তিনি খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচিত হন।

দুটি দল মাঠে নেমে খেলা শুরু করার কিছুক্ষণ পর গ্লাভস, প্যাড, হেলমেট পরে মাঠে নেমে যান আতিকুল ইসলাম। ব্যাট হাতে চলে যান স্ট্রাইকিং প্রান্তে।
একজন স্পিনার আতিককে বল করতে এলে কয়েকটি বল খেলে তিনটি বাউন্ডারিতে পাঠান নৌকার প্রার্থী। পরে ওই বোলারের বলেই বোল্ড হয়ে ফিরে আসেন মাঠের বাইরে।

খেলার প্রচার শেষে আতিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, যুব সমাজকে মাদকমুক্ত-সন্ত্রাসমুক্ত করতে গেলে খেলাধুলার বিকল্প নেই। এজন্য নির্বাচিত হলে ঢাকা উত্তরে খেলার মাঠ তৈরির দিকে তিনি মনোযোগ দেবেন।

“আমাদের যুব সমাজ নানা কারণে ডিপ্রেশনে চলে যাচ্ছে। আমাদের সমাজে এমন কোনো ঘর নাই যেখানে কেউ না কেউ এ সমস্যায় আক্রান্ত নয়। আমরা হয়ত লোকলজ্জার ভয়ে সমাজের সামনে বিষয়টি আনি না। খেলাধুলা থাকলে যুব সমাজ এ ধরনের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবে বলে আমি মনে করি।”

আতিক বলেন, “আপনাদের ভোটে, জনগণের ভোটে ইনশাল্লাহ আগামী ফেব্রুয়ারিতে নৌকা মার্কায় জয়যুক্ত হলে আমি কথা দিতে পারি মাঠগুলোকে অবশ্যই ফিরিয়ে আনব। খুশি হবেন যে আমরা ২৪টি পার্ক এবং মাঠের কাজে হাত দিয়েছি, এসব মাঠের মধ্যে কয়েকটি হবে মাল্টিপারপাস। সেখানে ক্রিকেট ফুটবলসহ বিভিন্ন খেলাধুলা করা যাবে।”
নির্বাচিত হলে কর্মজীবী মানুষের জন্য রাতে খেলার ব্যবস্থাও করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন গার্মেন্ট ব্যবসা থেকে রাজনীতিতে আসা আতিকুল।

“আমাদের অনেকে দিনের বেলা অফিসে চলে যায়। আমরা মাঠগুলোয় বাতির ব্যবস্থা করে দেব। যেন কাজ শেষে বাচ্চাদের নিয়ে মাঠে যেতে পারেন। নির্বাচিত হলে নারীদের জন্য ক্রিকেট, ফুটবল, ভলিবল টুর্নামেন্ট চালু করা হবে। আমাদের এতিহ্যবাহী অনেক খেলা হারিয়ে গেছে। সেগুলো ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিতে হবে।”

স্কুল-কলেজে নিয়মিত খেলাধুলা করতেন জানিয়ে আতিক বলেন, এখনও উত্তরায় নিয়মিত ফুটবল খেলেন বলেই শারীরিকভাবে অনেকটা ‘ফিট’।
“অনেকে আমার কাছে জানতে চায় আমি ফিট আছি কীভাবে। তাদের বলি, আমি এখনও প্রতিদিন বাসায় যাওয়ার আগে ফুটবল খেলি। না হলে পরদিন সকালে মাঠে যাই।”

বক্তব্য শেষে আতিকুল ইসলাম আশপাশের মানুষের কাছে প্রচারপত্র বিলি করেন এবং নৌকা মার্কায় ভোট চান। আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মী এবং গুলশান ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকর্তারা এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

 

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর