শনিবার ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৮:৫২ পিএম


গুণগত উচ্চশিক্ষা নিশ্চিত করতে যোগ্য শিক্ষক নিয়োগের আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:২৬, ২৮ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ২৩:০৪, ২৮ জানুয়ারি ২০২০

দেশের পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদেরকে গুণগত উচ্চশিক্ষা নিশ্চিত করতে যোগ্য শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)- এর চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেছেন যোগ্য ব্যক্তিকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ না দেওয়া হলে উচ্চশিক্ষায় গুণগত পরিবর্তন আসবে না।

তিনি বলেন, পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার মান ক্রমশ নিম্নমুখী হচ্ছে। পাশাপাশি শিক্ষকদের শিক্ষাসেবার মানও কমে যাচ্ছে। পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায়শই শিক্ষক নিয়োগে যোগ্যতা সঠিকভাবে যাচাই করে দেখা হচ্ছে না। যথাযথ ব্যক্তিকে নিয়োগ প্রদান করা না হলে শুধু প্রযুক্তি দিয়ে এ অবস্থা থেকে উত্তরণ সম্ভব নয়।

মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি ) ইউজিসিতে আয়োজিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসিউরেন্স সেল (আইকিউএসি) এর বর্তমান অবস্থা এবং ভবিষ্যৎ করণীয় শীর্ষক এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, শিক্ষা ও শিক্ষকতায় দায়বদ্ধ এমন ব্যক্তিদের নিয়োগ প্রদান করা হলেই দেশের উচ্চশিক্ষা কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবে। শুধুমাত্র শিক্ষকদের সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়ে শিক্ষার গুণগনমান বাড়ানো করা যাবে না। সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে হারানো ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধার করতে হবে।

অনিয়ম করলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ও পার পাবে না উল্লেখ করে ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, সাবজেক্ট খোলা ও শিক্ষার্থী ভর্তিতে ইউজিসির অনুমতি ও নিয়ম মেনে চলতে হবে। তিনটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুমোদিত সংখ্যার অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য জরিমানা করা হয়েছে।

ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগম, প্রফেসর ড. মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন কাউন্সিলের সদস্য প্রফেসর ড. সঞ্জয় কুমার অধিকারী; ৪২ টি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যগণ, ইউজিসি ও আইকিউএসি‘র পরিচালকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কর্মশালায় প্রফেসর আলমগীর বলেন, ইউজিসি দেশের পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালরে মধ্যে কোন পার্থক্য দেখে না। আগামীতে যারা গুণগত শিক্ষা নিশ্চিত করবে জনগণ তাদেরকে গ্রহণ করবে এবং সেসব বিশ্ববিদ্যালয়কে পুরস্কৃতও করা হবে। আইকিউএসি সম্পর্কে তিনি বলেন, এটি বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি নতুন মাত্রা যোগ এবং মানোন্নয়নের সংস্কৃতি নিশ্চিত করবে। বিশ্ব র্যাং কিং এ দেশের বিশ্ববিদ্যালয়সমূহকে এগিয়ে নিতে আইকিউএসি মূল ভূমিকায় অবতীর্ণ হবে। তিনি বলেন, সরকারের ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়নে মানসম্মত উচ্চশিক্ষার কোন বিকল্প নেই। ভবিষ্যতে দেশের উচ্চশিক্ষা কার্যক্রম আউটকাম বেইজড এডুকেশনের ওপর ভিত্তি কওর পরিচালিত হবে।

কর্মশালায় ইউজিসি স্ট্র্যাটেজিক প্লানিং, কোয়ালিটি অ্যাসিউরেন্স বিভাগের পরিচালক ড. মোঃ সুলতান মাহমুদ ভূইয়া প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে আইকিউএসি’র কার্যক্রমের ওপর বক্তব্য প্রদান করেন।

 


এডুকেশন বাংলা / এসআই

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর