বুধবার ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ১৭:৫২ পিএম


ক্লাশের পরে লাইব্রেরীতে বিসিএস গাইড মুখস্ত করে

দেবাশিস পাল

প্রকাশিত: ১২:৫২, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

বাংলাদেশের পাশের দেশ ভারত নিজেদের বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের ছাত্রদের বিজ্ঞানী বানায়, তারপর তারা নিজেদের টাকায় চাঁদে নভোযান পাঠায়, তারা প্রথমবার সফল হয় না, কিন্তু এটা নিশ্চিত তারা ২য় বার কিংবা ৩য় বার কিংবা ১০০ তম বারে সফল হবে।

বাংলাদেশে এখানে ছেলেমেয়েরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে, ক্লাশের পরে লাইব্রেরী তে বিসিএস গাইড মুখস্ত করে। দুনিয়ার সবচেয়ে বড় বিসিএস কোচিং সেন্টার হয় বিশ্ববিদ্যালয়। তারপর তারা বিজ্ঞানী হয় না হয় ক্যাডার। তারপর তারা মনে করে ৫০০০ টাকা দিয়ে একটা যন্ত্র নিজেদের দেশে না বানিয়ে ৫ কোটি টাকা দিয়ে বাইরে থেকে আনাই লাভজনক । এতে করে ৪ কোটি ৯৯ লাখ ৯৫ হাজার টাকা নিজের পকেটে নেওয়া যাবে। আবার সেই দেশের কেউ কেউ বিজ্ঞানী হওয়ার চেষ্টা করে, সফল ও হয়, পুরস্কার পায়!! কিন্তু পুরস্কার নিতে গেলে দেখে তাদের ভিসা হয়নি!! ভিসা হয়েছে তার দেশের বিসিএস আমলাদের!! তারা দেশ বিদেশ ঘুরে সেই উঠতি বিজ্ঞানীর পুরস্কার গ্রহণ করে। তারপর সেই বিজ্ঞানী রাগে ক্ষোভে অন্য দেশে পাড়ি জমায়।

তারপরে সেই বিজ্ঞানী যখন বিদেশে তার যোগ্য রেকগনিশন পাওয়া শুরু করে তখন বাংলাদেশ থেকে তাদের `উফফ বাংলার সন্তান, উই আর প্রাউড স্যার` বলে গর্ব করা হয়, এভাবেই দেশের উন্নয়ন হয়।

লেখকের ফেসবুক থেকে নেয়া

এডুকেশন বাংলা/এজেড

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর