সোমবার ১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০:২১ এএম


কোমল পানীয় পানে ৪ জেএসসি পরীক্ষার্থী অসুস্থ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২০:৩৪, ৫ নভেম্বর ২০১৯  

কোমল পানীয় স্পিড পান করার পর চার জেএসসি পরীক্ষার্থী অসুস্থ হয়েছেন। সোমবার (৪ নভেম্বর) টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বরাটি নরদানা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে তাদের মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অসুস্থ্ চার পরীক্ষার্থীরা হলেন- ইতি আক্তার, মীম আক্তার, শিলা আক্তার ও আঁখি আক্তার। তারা সবাই মির্জাপুর উপজেলার বরাটি নরদানা বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

জানা গেছে, সোমবার ইংরেজি পরীক্ষা দিতে তারা মির্জাপুর সদরের সরকারি সদয় কৃষ্ণ মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে যান। পরীক্ষা শেষে বাসস্ট্যান্ডে একটি দোকান থেকে কয়েক বোতল কোমল পানীয় ‘স্পিড’ কিনেন ইতি আক্তার, মীম আক্তার, শিলা আক্তার, তৃষ্ণা ও আঁখি আক্তার। এদের মধ্যে তৃষ্ণা ছাড়া সবাই ওই পানীয় পান করেন। পরে তারা বাড়ির উদ্দেশে একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশায় ওঠেন।

তবে পানীয় পান করার কিছুক্ষণের মধ্যে অটোর ভেতরেই ইতি আক্তার, মীম আক্তার, শিলা আক্তার ও আঁখি আক্তার অসুস্থ্ হয়ে পড়েন। এদের মধ্যে ইতি আক্তার, মীম আক্তার ও শিলা আক্তারকে কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

স্থানীয় সাংবাদিক নিরঞ্জন সাহা জানান, মঙ্গলবার কিছুটা সুস্থ্ হলে ইতি, মীম ও শিলা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয় পরীক্ষায় অংশ নেন। পরীক্ষা শেষে তারা আবার হাসপাতালে ফিরে যান।

বরাটি নরদানা বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সোহরাব মল্লিক বলেন, মেয়েগুলো প্রায় মরনাপন্ন হয়ে পড়েছিল। এই পানীয়গুলো স্বাস্থ্যসম্মত কিনা দেখুন।

কুমুদিনী হাসপাতালের রেজিস্ট্রার ডা. পবিত্রা শারমিন বলেন, স্পিড নামে পানীয় খেয়ে তিন শিক্ষার্থী সোমবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এটি কী ধরনের বিষক্রিয়া তা বোঝা যাচ্ছে না। তবে খালি পেটে এই ধরনের পানীয় পান করলে পেটে এসিড বেড়ে বমিসহ নানা উপসর্গ দেখা দিতে পারে। এটিকে হাইপার এসিডিটি বলা হয়।

এডুকেশন/কেআর

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর