মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ২:৪৮ এএম


কোটা পুনর্বহালসহ ছয় দফা দাবিতে সাত দিনের আল্টিমেটাম

প্রকাশিত: ২২:৫৫, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ২৩:০২, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহালসহ ছয় দফা দাবিতে সাত দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে শাহবাগ মোড় থেকে অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছেন আন্দোলনকারীরা। শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৯টার দিকে শাহবাগের রাস্তা ছেড়ে দেন তারা। এর আগে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে শাহবাগে সড়ক অবরোধ করা হয়েছিল।

পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করেন সংগঠনটির আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুল। তিনি বলেন, ‘ছয় দফা দাবি আগামী সাত দিনের মধ্যে মেনে নেওয়া না হলে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।’

মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এএসএম আল সনেট জানান, আমাদের ছয় দফা আগেই জানানো হয়। এগুলো বাস্তবায়নের জন্য আমরা সময় বেঁধে দিয়েছি। এই সময়ের মধ্যে দাবি মেনে নেওয়া না হলে আরও বৃহৎ কর্মসূচি দেওয়া হবে।

সনেট আরও জানান, শাহবাগ মোড় অবরোধ করে অবস্থান নেওয়ায় আশপাশে যানজট সৃষ্টি হয়। জনদুর্ভোগের কথা চিন্তা করে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়েছে।

আন্দোলনকারীদের ছয় দফা দাবি হলো:

১. সামাজিক মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে কটূক্তিকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে বিচার করতে হবে।

২. মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে গঠিত কোটা পর্যালোচনা কমিটির প্রতিবেদন অবিলম্বে বাতিল করতে হবে।

৩. ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটার পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিসিএসসহ সব চাকরির পরীক্ষায় প্রিলিমিনারি থেকে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাস্তবায়ন করতে হবে।

৪. মুক্তিযোদ্ধা পরিবার সুরক্ষা আইন প্রণয়ন ও তাদের সাংবিধানিক স্বীকৃতি দিতে হবে ৷

৫. স্বাধীনতাবিরোধী, রাজাকার ও তাদের বংশধরদের চিহ্নিত করে সরকারি সব চাকরি থেকে বহিষ্কার, নাগরিকত্ব বাতিল ও সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে রাষ্ট্রের অনুকূলে ফেরত নিতে হবে।

৬. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে হামলাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে

 

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর