মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট, ২০২০ ১৭:৫৫ পিএম


কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষকদের মানবেতর জীবন

প্রকাশিত: ০৬:৪৩, ২ জুলাই ২০২০  

করোনার কারণে স্থবির বিশ্ব, স্থবির হয়ে পড়েছে শিক্ষাব্যবস্থা। তবে এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে কিন্ডারগার্টেনগুলোতে। বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন এর শিক্ষরা। জানা গেছে, উপজেলায় ৩৭টি কিন্ডারগার্টেনের অন্তত ৪৪৫ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ১১২ জন কর্মচারী বেকার হয়ে মাববেতর জীবনযাপন করছেন। বাড়ি ভাড়া পরিশোধ করতে না পারায় কোনো কোনো কিন্ডারগার্টেনের টেবিল, চেয়ার ও বেঞ্চ বাইরে ফেলে দিয়েছেন বাড়ির মালিক। সরজমিনে দেখা যায়, পৌর এলাকার ফসলান্দিস্থ রোজবাড কিন্ডারগার্টেনের টেবিল, চেয়ার ও বেঞ্চ বাইরে পড়ে আছে।

কিন্ডারগার্টেনের মালিক জানান, করোনাভাইরাসের কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় ঘর ভাড়া পরিশোধ করা সম্ভব হয়নি। বাড়ির মালিকের চাপে ধারদেনা করে ভাড়া পরিশোধ করার পর বাড়ি ছেড়ে দিতে বাধ্য হই। মালিক সময় না দেয়ায় চেয়ার বেঞ্চ বাইরে ফেলে রাখতে হয়েছে। শিক্ষিকা সুফিয়া খাতুন জানান, স্কুল বন্ধ থাকার কারণে বেতেনাদি পাচ্ছি না। ফলে অর্থকষ্টে আছি। এ অবস্থা কত দিন থাকবে জানি না। ততদিন আমরা কীভাবে চলব ভেবে দিশেহারা হয়ে পড়ছি।’ ভূঞাপুর কিন্ডারগার্টেন অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি খায়রুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, ‘শিক্ষক-শিক্ষিকারা বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

এ পর্যন্ত সরকার থেকে কোনো প্রকার সহযোগিতা বা প্রণোদনা পাননি শিক্ষক-কর্মচরীরা। ভূঞাপুরে ৪৪৫ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা, ১১২ জন কর্মচারী ও প্রায় ৭ হাজার শিক্ষার্থীর জীবন অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে।’ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. নাসরীন পারভীন জানান, ‘সরকার থেকে কিন্ডারগার্টেনের জন্য কোনো প্রকার আনুদান দেয়া হয়নি। তারা আবেদন করলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে বিবেচনার জন্য পাঠানো হবে।’

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর