শনিবার ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ৮:১২ এএম


এমপিও হলো এশারতের প্রতিষ্ঠান

মো. শফিকুল ইসলাম

প্রকাশিত: ১৬:৩৭, ২৫ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ০৯:৫৬, ২৬ অক্টোবর ২০১৯

ননএমপিও শিক্ষক আন্দোলনের একসময়ের সভাপতি অধ্যক্ষ এশারত আলীর প্রতিষ্ঠানটি এবার এমপিওভুক্ত হয়েছে।তার প্রতিষ্ঠানটি সিরাজগঞ্জের বাগবাটি টেকনিক্যাল এন্ড বিএম কলেজে। ইআইএন নং ১৩২৬৫২।

তবে তার সাথে থাকা সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মিলন কুমার ঘোষালের প্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্ত হতে পারেনি। এর আগের সাধারণ সম্পাদক তাপস কুমার কুন্ডুর প্রতিষ্ঠানটিও এমপিও বঞ্চিত হয়েছে। তার প্রতিষ্ঠানটির নাম ঢাকুরিয়া কলেজ, যেটি যশোরের মনিরামপুরে অবস্থিত।  

 

আরো পড়ুন : এমপিওভুক্তির তালিকা প্রশ্নবিদ্ধ!

আরো পড়ুন : শিক্ষামন্ত্রীর জেলার ৩১ প্রতিষ্ঠান এমপিও

তাপস কুমার কুন্ডুর অভিযোগ, তার প্রতিষ্ঠানটি নীতিমালার সব শর্ত পুরণ করলেও এমপিওভুক্ত হয়নি। তিনি বলেন, যে অতিরিক্ত বরাদ্দ আছে সেখান থেকে আমার প্রতিষ্ঠানসহ অন্যদেরও এমপিওভুক্ত করা হোক। তিনি জানান, তাদের সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির ৭১ সদস্যের মধ্যে ৩৩ সদস্যের প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়েছে।

দীর্ঘসময় এমপিওভুক্তির দাবিতে নেতৃত্ব দেয়া এশারত আলী গত একবছরে ধরে নিস্ক্রিয় ছিলেন। মাঝে মাঝে ঘরোয়া কোন পরিবেশে কর্মসূচি পালণ করতে দেখা গেছে। আন্দোলনের মাঠে না থাকায় শিক্ষকরা তার সমালোচনা মুখর ছিলেন। কয়েকদিন ধরে এশারত আলীর মোবাইল নম্বরটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

বিভিন্ন শিক্ষক নেতারা এডুকেশন বাংলায় ফোন করে তার বিষয় জানতে চান।

 

আরো পড়ুন : শীর্ষ দুই নেতার প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়নি

গত একবছরে ধরে আন্দোলনের মাঠে নেতৃত্ব দিচ্ছেন অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার ও অধ্যক্ষ বিনয় ভুষণ রায়। এই শীর্ষ দুই নেতা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়নি। তাদের সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির শতাধিক নেতাদের মধ্যে মাত্র ৮ জনের প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়েছে বলে তারা দাবি করেন।  

 

 

 

 

 

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর