বৃহস্পতিবার ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ ৬:০৩ এএম


এমপিও নীতিমালা সংশোধনের দাবিতে কর্মসূচি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮:৫০, ২৪ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ২০:২৮, ২৪ নভেম্বর ২০১৯

এমপিও নীতিমালা-২০১৮’ সংশোধন করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত বেসরকারি কলেজে অনার্স-মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগকৃত শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির দাবিতে কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টর্স শিক্ষক ফোরাম।

রোববার (২৪ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, আগামী ৪ ডিসেম্বর থেকে জেলায় জেলায় মানববন্ধন করে জেলাপ্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী এবং শিক্ষামন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সব বেসরকারি কলেজে ক্লাসসহ পরীক্ষা বর্জনের মতো কর্মসূচি পালন করবেন শিক্ষকরা।

‘বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টর্স শিক্ষক ফোরামের আহ্বায়ক নেকবর হোসাইন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৯২ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে ৮৫৭ টি কলেজে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্সে পাঠদান করা হচ্ছে। যার মধ্যে সরকারি কলেজে ২৯৯ টি এবং উপজেলা পর্যায়ে সদ্য জাতীয়করণকৃত কলেজ ৩০২ টি। অবশিষ্ট বেসরকারি কলেজে রয়েছে মাত্র ২৫৬ টি। এই ২৫৬ টি বেসরকারি কলেজে প্রায় ৪ লাখ শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত আছে।

সরকারি কলেজে একজন ছাত্রের মাসিক বেতন মাত্র ২৫ টাকা জানিয়ে তিনি বলেন, বেসরকারি কলেজে ৪০০ টাকা থেকে ১৫০০ টাকা মাসিক বেতন দিতে হয়। কিন্তু জেলা-উপজেলা শহরের কলেজগুলোতে গরিব পরিবারের ছেলে-মেয়েরা লেখা পড়া করে। এ জন্য তারা এই বেতন দিতে পারে না। তাই বেসরকারি কলেজে অতিরিক্ত শিক্ষা ব্যয়ের কারণে শেষ পর্যন্ত লেখাপড়া শেষ না করেই উচ্চ শিক্ষা থেকে অনেক শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়ে। আর বেসরকারি কলেজে কর্মরত শিক্ষককে কোনো কোনো কলেজে নাম মাত্র ২ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা সম্মানী দেয়া হয়। সেটাও অনেক কলেজ প্রতিমাসে দিতে পারে না। তাই বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ সংশোধন করতে হবে।

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, আগামী ৪ ডিসেম্বর থেকে জেলায় জেলায় মানববন্ধন ও স্মারকলিপি পেশ করা হবে। এছাড়াও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বেসরকারি কলেজে ক্লাসসহ সকল পরীক্ষা বর্জন করা হবে। এমনকি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে লাগাতার অবস্থান কর্মসুচি পালন করা হবে বলেও জানান আহ্বায়ক নেকবর হোসাইন।

সংগঠনের সদস্য সচিব মো. মেহরাব আলীর সঞ্চালনায় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. শাহ্জাহান আলম সাজু।

সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- মো. সাদিকুর রহমান, কামরুল হাসান লিপু, মো. আলাউদ্দিন, হারুন অর রশীদ, মো. মোস্তফা কামাল, মোকলেসুর রাহমান মনি, নূরুল আবছার শিকদার, রুহুল আমিন, সুকোমল সেন, ইমদাদুল ইসলাম, শফিকুর রহমান, আবু সাইদ, আসাদুল, তরিকুল, সুলতান, সাইফুল, আব্দুল খালেক, রফিকুল, গাজী নজরুল, আরাফাত, ফারুক হোসেন, আব্দুল কাদের, নাজমুল, বিপ্লব, শাম্মি আক্তার, পারভেজ, মাজহারুল ইসলাম, হুমায়ুন কবির সুমন, নয়ন, রনি প্রমুখ।

এডুকেশন/কেআর/এসআই

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর