শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৩:১৬ পিএম


এমপিও নীতিমালা সংশোধনী কমিটির কাছে ১০ দাবি জানাবে শিক্ষক ফোরাম

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০০:২০, ৩০ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০৯:৩৬, ৩০ নভেম্বর ২০১৯

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ সংশোধনী কমিটির কাছে আগামী ৩ ডিসেম্বর  ১০ দফা দাবি জানাবে বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরাম। শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারি ফোরামর কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। রাজধানীর খিলক্ষতে সংগঠনটির অস্থায়ী কার্যালয় কুর্মিটালা হাইস্কুল এন্ড কলজে এ সভা হয়।

সংগঠনর সভাপতি সাইদুল হাসান সলিমের সভাপতিত্ব এবং মহাসচিব আব্দুল খালেকের উপস্থাপনায় সভায় উপস্থিত কার্যনির্বাহী সদস্যদের দীর্ঘ আলাচনার “বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানর (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামা এবং এমপিও নীতিমালা-২০১৮” সংশাধনের বিয়য়ে ১০টি দাবি জানানো বিষয় সংশোধনী কমিটির আহবায়ক বরাবর একটি দাবিনামা পেশ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সংশোধনের দাবিগুলো হচ্ছে, বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদর অনুপাত প্রথা (৫:২) বাতিল কর সরকারি নিয়ম সহকারী অধ্যাপক পদ পদোন্নতি দিতে হব। ধারা ১১.৪ এ উল্লেখিত পদোন্নতি বঞ্চিত প্রভাষকদের পূর্বের ন্যায় (২০১০ এর নীতিমালা) ৮ বছর পূর্তিত ৯ম গ্রেড থেকে ৭ম গ্রেড প্রদান । কোনো কারণ তা সম্ভব না হলে প্রভাষকদর প্রারম্ভিক গ্রেড ৯ এর পরিবর্ত ৮ করে ১০ বছর ৭ম গ্রেড এবং ১৬ বছর ৬ষ্ঠ করা ।

২. নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভূক্তির ক্ষেত্রে পাবলিক পরীক্ষার্থীর নূন্যতম সংখ্যা ৪০ জন এবং পাসের হার ৭০ শতাংশ বাধ্যতামূলক, এমন কালো আইন বিলুপ্ত করতে হবে।

৩. গভর্নিবডি ও ম্যানজিং কমিটির সভাপতির শিক্ষাগত যোগ্যতা নূন্যতম স্নাতক ডিগ্রী করতে হবে।

৪. অবিলম্বে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারিদর বদলির নীতিমালা প্রনয়ণ ও তা দ্রুততম সময় বাস্তবায়ন করত হবে।

৫. দেশের ৯৭ শতাংশ শিক্ষার দায়িত্ব পালন করেন এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষকরা। শিক্ষার গুণগত মানানয়ন বসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়ন করে তা দ্রুততম সময়ে বাস্তবায়নের ব্যবস্থা।

৬. নীতিমালার পরিশিষ্ট ঘ এ উল্লেখিত প্রধান শিক্ষক /অধ্যক্ষ/উপাধ্যক্ষ পদে নিয়োগের ক্ষত্র পূর্বের ন্যায় সহকারী শিক্ষক/ প্রভাষক পদর অভিজ্ঞতা বহাল

৭. সরকারি স্কুল কলেজের গ্রন্থাগারিকদের মর্যাদার মত বেসরকারি স্কুল কলেজের গ্রন্থাগারিকদের শিক্ষকের মর্যাদা
দিতে হবে।

৮. ২০০৯ এবং ২০১৩ এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো অনুযায়ী শিক্ষকতায় ৮ বছর এবং ১২ বছর দুটি উচ্চতর গ্রেড দিতে হবে।

৯. ২০১৫ এর পূর্বর ন্যায় সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্রধানদের বেতন ¯বৈষম্য দূরীকরণ করতে হব।

১০. যত দ্রুত সম্ভব জাতীয় শিক্ষানীতি এবং এমপিওভুক্তি ও জনবল নীতিমালা অনুসার শিক্ষা আইন প্রকাশ করতে হবে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক মো. এনামুল ইসলাম মাসুদ, সহ-সভাপতি বিপ্লব কান্তি দাস, যুগ্মসচিব আব্দুল জব্বার, মো. দেলোয়ার হোসেন আজিজী,রেহান উদ্দিন, ধর্ম বিষয়ক উপাধ্যক্ষ আব্দুর রহমান, প্রচার সম্পাদক মা. মতিউর রহমান দুলাল, অর্থ সম্পাদক মো. কামরুল হাসান, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম প্রমুখ।


এডুকেশন বাংলা / এসআই

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর