রবিবার ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ২০:৪০ পিএম


খরচ বেড়েছে ৮৮২ কোটি টাকা, চলতি অর্থবছরে আরও প্রতিষ্ঠান এমপিও

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১১:৩১, ২৪ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১১:৩৬, ২৪ অক্টোবর ২০১৯

নতুন করে ২৭৩০ টি প্রতিষ্ঠান এমপিও করাতে খরচ বেড়েছে ৮৮২ কোটি টাকা। বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই এমপিওর ঘোষণা দেন।

তবে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ১৬৫১টি স্কুল-কলেজ এমপিওভুক্ত করায় এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন বাবদ চলতি অর্থ বছরে ৪৫০ কোটি ৮৩ লাখ ৭৭ হাজার ৪৪০টাকা দরকার হবে। তবে এ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের জন্য চলতি অর্থ বছরে এমপিও খাতে ৮৬৫ কোটি টাকা বরাদ্দ আছে। অবশিষ্ট অর্থ দিয়ে যাচাই -বাছাই করে চলতি অর্থ বছরে আরও প্রতিষ্ঠান এমপিভুক্ত করা হবে।

কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, ৫৫৭টি মাদ্রাসা এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে নতুন করে মাত্র ৩৫৯টি দাখিল মাদ্রাসা এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। বাকিগুলো স্তর পরিবর্তন করা হয়েছে। আলিম ১২৭টি, ফাজিল ৪২টি, কামিল স্তরের ২৯টি মাদ্রাসা এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। আর ৫২২টি কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে কৃষি ৬২টি, ভোকেশনাল স্বতন্ত্র ৪৮টি ও ভোকেশনাল সংযুক্ত ১২৯টি, বিএম স্বতন্ত্র ১৭৫টি ও বিএম সংযুক্ত ১০৮টি নতুন প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। সব মিলিয়ে নতুন করে মাত্র ৮৮১টি মাদ্রাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। এ বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ১০৭৯টি মাদ্রাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে চলতি অর্থ বছরে ৪৩১ কোটি তিন লাখ ৮১ হাজার ৪২০ টাকা দরকার হবে। বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ আছে ২৮২ কোটি টাকা। অতিরক্ত ১৪৯ কোটি তিন লাখ ৮১ হাজার ৪০০ টাকা দরকার হবে। চলতি অর্থ বছরের বাজেটে বরাদ্দ সাপেক্ষে সমন্বয় করা হবে।

গত বছর ৫ থেকে ২০ আগস্ট পর্যন্ত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিদ্যালয় (বুয়েট) তৈরি করা বিশেষ সফটওয়্যারের মাধ্যমে সারাদেশে এমপিওভুক্তির আবেদন নেওয়া হয়। এমপিওভুক্তির নীতিমালা-২০১৮-এর ১৪ ধারা অনুযায়ী, চারটি মানদন্ডে প্রতিষ্ঠান যাছাই করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের যোগ্যতা হিসেবে প্রতিষ্ঠানের বয়স ২৫ নম্বর, শিক্ষার্থীর সংখ্যার ক্ষেত্রে ২৫ নম্বর, পাবলিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৫ নম্বর এবং পাসের হারে ২৫ নম্বর করে মোট ১০০ নম্বরের গ্রেডিং করা হয়। সেখানে সর্বনিম্ন ৭০ নম্বর পাওয়া প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য যোগ্য বলে তালিকা করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এমপিও নীতিমালা-২০১৮-তে এমপিওভুক্তির জন্য পাঁচটি স্তর নির্ধারণ করা হয়। স্তরগুলো হলো- নিম্ন মাধ্যমিক (৬ষ্ঠ থেকে ৮ম), মাধ্যমিক (৯ম থেকে ১০ম), উচ্চমাধ্যমিক (৬ষ্ঠ থেকে ১২শ), কলেজ (১১শ থেকে ১২শ), স্নাতক (পাস) তথা ডিগ্রি কলেজ (১১শ থেকে ১৫শ)। এমপিওভুক্তির জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে মোট আবেদন জমা পড়েছিল ৬ হাজার ১৪১টি।

এডুকেশন বাংলা/একে

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর