বৃহস্পতিবার ০৪ জুন, ২০২০ ৮:২৬ এএম


এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের উচ্চতর গ্রেড প্রদানের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:৫৯, ১৫ মে ২০২০  

এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের উচ্চতর গ্রেড প্রদানের দাবি জানিয়ে আবেদন করেছেন বাংলাদেশ  শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম রনি। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর লেখা আবেদনপত্রে তিনি উল্লেক করেন

এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের সারা জীবনে একটি মাত্র টাইমস্কেল ছিল কিন্তু সেটা ২০১৫ সালের পর থেকে বন্ধ রয়েছে।২০১৫ সালে ৮ম জাতীয় পে-স্কেল চালু হলে সরকারি কর্মকর্তা ও সরকারি শিক্ষক সবাই উচ্চতর গ্রেড এর সুবিধা পেল কিন্তু এমপিওভুক্ত শিক্ষকদেরকে দেয়ার কথা থাকলেও দীর্ঘ ৫বছরেও এর বাস্তবায়ন হলোনা।এ নিয়ে শিক্ষক সমাজে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।এতে বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছ মারাত্মক ভাবে ।

শিক্ষকরা প্রতিমাসে প্রায় ৬০০০-৭০০০টাকা প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।এমতাবস্থায় শিক্ষকতার প্রতি অনেকের অনীহা চলে এসেছে।শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়ন করতে হলে অবশ্যই শিক্ষকদের ন্যায্য পাওনা দিতে হবে।এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীগণ মাত্র ১০০০টাকা বাড়ি ভাড়া ও ৫০০টাকা চিকিৎসা ভাতা পান।দীর্ঘ ১৬বছরেও ২৫%ঈদবোনাসের কোন পরিবর্তন নেই।এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন বৈষম্য আকাশ ছোঁয়া।এদের কোন বদলি নেই।নেই শিক্ষা সহায়ক ভাতা।

করোনার প্রভাবে গৃহবন্দি শিক্ষকরা সামান্য বেতন ভুক্ত শিক্ষক কর্মচারীগণ বর্তমানে চরম আর্থিক কষ্টে দিন যাপন করছেন।এদের জীবন আজ দুর্বিষহ।দেখার কেউ নেই মাননীয় ডিজি মহোদয়।

এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের উচচতর গ্রেড এর বাজেট বরাদ্দ রয়েছে।একবার শিক্ষা মন্ত্রালয়ে এ বিষয়ে একটি সভাও হয়েছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে।আপনি আন্তরিক হলে শিক্ষক সমাজ শীঘ্রই উচ্চতর গ্রেড পাবে এমনটি আমরা শিক্ষক সমাজ প্রত্যাশা করছি।

সুতরাং আগামীকাল ১৬মে/২০২০তারিখে এমপিও` সংক্রান্ত সভায় বিশেষ সিদ্ধান্ত নিয়ে অতিদ্রুত শিক্ষকদেরকে তাদের ন্যায্য পাওনা উচ্চতর গ্রেড প্রদানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিলে আপনার নিকট চির কৃতজ্ঞ থাকব।



সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর