রবিবার ১৮ আগস্ট, ২০১৯ ২১:৩৫ পিএম


আত্তীকরণকৃত শিক্ষক-কর্মচারীদের নিয়মিতকরণ কোন তারিখ থেকে গণনা

এ এ আজাদ

প্রকাশিত: ০০:২০, ২০ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ০৭:৩৩, ২০ জুলাই ২০১৯

জাতীয়করণকৃত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়) আত্তীকরণকৃত শিক্ষক-কর্মচারীদের নিয়মিতকরণ কোন তারিখ থেকে হবে তা নিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আত্তীকরণকৃত শিক্ষক-কর্মচারীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। আত্তীকরণকৃত শিক্ষক-কর্মচারীদের নিয়মিতকরণ নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সুস্পষ্ট কোন নীতিমালা নেই বলে জানা গেছে।

ফলে ২০০৯ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত জাতীয়করণকৃত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আত্তীকরণকৃত শিক্ষক-কর্মচারীগণ ক্ষেত্রভেদে অনেকেই এডহক ভিত্তিতে নিয়োগের পর যোগদানের তারিখ থেকে আবার অনেকেই প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের তারিখ থেকে নিয়মিতকরণ হয়েছেন। ২০০৯ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত কলেজের শিক্ষকগণ আত্তীকরণ হয়েছেন ২০০০ সালের বিধি অনুযায়ী, স্কুল শাখার শিক্ষকগণ আত্তীকরণ হয়েছেন ১৯৮৩ সালের বিধি অনুযায়ী। আর যাঁরা ২০১৭ সালের পর আত্তীকরণ হচ্ছেন তারা হচ্ছেন ২০১৮ সালের নতুন নীতিমালা অনুযায়ী।

জাতীয়করণকৃত প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আত্তীকরণকৃত শিক্ষক-কর্মচারীগণ সরকারের রাজস্ব খাত থেকে পূর্ণাঙ্গ বেতন-ভাতা গ্রহন করছেন প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের তারিখ থেকে। এক্ষেত্রে এডহক ভিত্তিতে নিয়োগ পত্র পাওয়ার পর যোগদানের তারিখ প্রাধান্য দেওয়া হয়নি। সরকারের রাজস্ব খাত থেকে সম্পূর্ণ বেতন-ভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে যেহেতু যোগদানের তারিখ বিবেচ্য বিষয় হিসাবে ধরা হয়নি প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের তারিখ বিবেচ্য বিষয় হিসাবে ধরা হয়েছে সেহেতু চাকুরী নিয়মিতকরণের ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের তারিখ ধরার জন্য আত্তীকরণকৃত শিক্ষক-কর্মচারীগণ জোর দাবী জানিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কলেজ শিক্ষক বলেন আমাদের চাকুরীতো নতুন নয়, আমরা এমপিও-ভূক্ত, নিয়মিত ও স্থায়ী শিক্ষক ছিলাম। প্রতিষ্ঠানের গভর্ণিং বডি আমাদের দুই বছর চাকুরী সন্তোষজনক হওয়ার পর নিয়মিত ও স্থায়ীকরণ করেছেন। এখন আবার শুনছি আমাদেরকে নতুন করে নিয়মিতকরণ করবে তাও আবার নতুনভাবে যোগদানের তারিখ থেকে তিন বছর পর। আমার প্রশ্ন- জাতীয়করণ মানে পুরস্কার না তিরস্কার ? এক মুরগি বা গরু কয়বার জবাই করা যায় ? যোগদানের তারিখ থেকে যদি চাকুরী গণনা করা হয় তাহলে যোগদানের পূর্বে প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের তারিখ থেকে সরকারের রাজস্ব খাত হতে পূর্ণাঙ্গ  বেতন-ভাতা পেলাম কিভাবে ? যোগদান ছাড়া কি পূর্ণাঙ্গ বেতন-ভাতা পাওয়া যায় ?

ঐ কলেজ শিক্ষক আরো বলেন- চাকুরী নতুন হলে তো গেজেটেড কর্মকর্তা হিসাবে শুরুতে ২২০০০/- স্কেলে বেতন পাওয়ার কথা। অনেক কলেজ শিক্ষক তো ৩৫৫০০/- টাকা স্কেলে প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের তারিখ থেকে সরকারের রাজস্ব খাত হতে পূর্ণাঙ্গ বেতন-ভাতা পেয়েছেন। তাহলে কি আমাদের চাকুরী নতুন ? যোগদানের তারিখ কি বিবেচ্য বিষয় ? নিশ্চয় না। আমার জানামতে বেশ কিছু জাতীয়করণকৃত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে যেগুলোর আত্তীকরণকৃত শিক্ষক যোগদানের তিন বছর পূর্তি হওয়ার অনেক পূর্বেই নিয়মিতকরণ হয়েছে।

ভোলার চরফ্যাশন সরকারি কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীগণ এডহক ভিত্তিতে নিয়োগ পান গত ১৬/০৪/২০১৫ তারিখে আর নিয়মিতকরণ হন ১৫/০২/২০১৮ তারিখে। এক্ষেত্রে নিয়মিতকরণ হতে সময় লেগেছে যোগদানের তারিখ থেকে দুই বছর নয় মাস। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে (মাউশি) নিয়মিতকরণের আবেদনের পর মাউশি তা যাচাই-বাছাই করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগে প্রেরণ করেন। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ তা যাচাই-বাছাই করে বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন সচিবালয়ে প্রেরণ করেন। বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন তা যাচাই-বাছাই করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগে পাঠান। এরপর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ চাকুরী নিয়মিতকরণের প্রজ্ঞাপন জারী করেন। একজন শিক্ষকের চাকুরী নিয়মিতকরনের আবেদন করার পর নিয়মিতকরণ হতে প্রায় ছয় মাস সময় লাগে। এ হিসেবে দেখা যায় ভোলার চরফ্যাশন সরকারি কলেজের আত্তীকরণকৃত শিক্ষকগণ নিয়মিতকরণের জন্য আবেদন করেছিলেন যোগদানের দুই বছর তিন মাস পর।

ঢাকা মহানগরীর গুলশান থানাধীন সরকারি কালাচাঁদপুর হাই স্কুল এন্ড কলেজটি জাতীয়করণ হয় ২৫/০২/২০১৬ তারিখে। এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীগণ এডহক ভিত্তিতে নিয়োগ পান ২৭/০২/২০১৮ তারিখে। শিক্ষক-কর্মচারীগণ যোগদান করেন ২৮/০২/২০১৮ তারিখে। শিক্ষক-কর্মচারীগণ সরকারের রাজস্ব খাত থেকে পূর্ণাঙ্গ বেতন-ভাতা গ্রহন করছেন প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের তারিখ ২৫/০২/২০১৬ থেকে। এ প্রতিষ্ঠানের স্কুল শাখার শিক্ষকগণ নিয়মিতকরণের জন্য আবেদন করেণ চলতি বছরের ফেব্রæয়ারী মাসের প্রথম সপ্তাহে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ স্কুল শাখার ২০ জন শিক্ষকের (সহকারি প্রধান শিক্ষকসহ) চাকুরী নিয়মিতকরণের প্রজ্ঞাপন জারী করেন ২০/০৬/২০১৯ তারিখে। অর্থাৎ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ স্কুল শাখার ২০ জন শিক্ষকের চাকুরী নিয়মিতকরণ করেন প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের ৩ বছর পর। এক্ষেত্রে যোগদানের তারিখ বিবেচ্য বিষয় হিসেবে ধরা হয়নি। অথচ একই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত একই প্রজ্ঞাপনে এডহক ভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত একই দিনে যোগদান করা ১৪ জন কলেজ শাখার শিক্ষক এখন পর্যন্ত নিয়মিতকরণ হননি। তাঁদের অপরাধ- তাঁরা কলেজ শাখার শিক্ষক। কলেজ শাখার শিক্ষকগণ আত্তীকরণ হয়েছেন ২০০০ সালের বিধি অনুযায়ী এবং স্কুল শাখার শিক্ষকগণ আত্তীকরণ হয়েছেন ১৯৮৩ সালের বিধি অনুযায়ী। ২০০০ বা ১৯৮৩ সালের কোন বিধিতেই আত্তীকরণকৃত শিক্ষকদের চাকুরী নিয়মিতকরণের বিষয়ে সুস্পষ্টভাবে কিছু বলা নাই।

এ বিষয়ে কলেজ শাখা থেকে শিক্ষকদের জানানো হয়, চাকুরীতে যোগদানের তারিখ থেকে ৩ বছর পূর্ণ না হলে নিয়মিতকরণের কোন সুযোগ নেই। এ সংক্রান্ত কোন প্রজ্ঞাপন বা লিখিত কোন বিধি আছে কিনা জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান “আমার জানা নেই।”

সরকারি কালাচাঁদপুর হাই স্কুল এন্ড কলেজের স্কুল শাখার ২০ জন শিক্ষক যোগদানের ১ বছর  ৫ মাসের মাথায় কিভাবে নিয়মিতকরণ হয়েছে তা জানতে চাইলে তিনি বলেন “এটাও আমি জানি না।”

এ এ আজাদ, শিক্ষাবিদ

 

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর