মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ৬:৩০ এএম


আগামী বছর অষ্টম শ্রেণী থেকে বাধ্যতামূলক কারিগরি শিক্ষা চালু

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৮:৫৩, ১৬ এপ্রিল ২০১৮   আপডেট: ১৯:৫৪, ১৬ এপ্রিল ২০১৮

আগামী বছর অষ্টম শ্রেণী থেকে বাধ্যতামূলক কারিগরি শিক্ষা চালু করতে যাচ্ছে সরকার।

কর্মমুখী শিক্ষার প্রসার ঘটাতে এবং দেশের ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ডকে (জনসংখ্যার বোনাসকাল) সঠিকভাবে কাজে লাগতে এই পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে সরকার। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে সিম্পোজিয়াম, সেমিনার এবং আলোচনার মাধ্যমে নানা পর্যলোচনা করে এই শিক্ষার কারিকুরাম নির্ধারণ করা হবে।

কারিগরি শিক্ষা বোর্ড ও কারিগরি শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষার্থীদেরকে অষ্টম শ্রেণীতে সাধারণ পাঠক্রমের পাশাপাশি কারিগরি বিষয় পড়ানো হবে। এরা চাইলে নবম ও দশম শ্রেণিতে কারিগরির বিশেষায়িত শিক্ষা নিতে পারবে।

এছাড়া যেসব উপজেলায় সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় নেই কিংবা আশপাশে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, টেক্সটাইল কিংবা ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট নেই সেসব উপজেলায় কারিগরি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে সরকার। এমনকি এসব বিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে ভালো যোগাযোগ ব্যবস্থা, বিদ্যুতের সহজলভ্যতা, জনবহুল এলাকা ইত্যাদি বিষয়কে বিবেচনায় নেওয়া হবে। কম্পিউটার, বাংলা, ইংরেজি, জীববিজ্ঞান, পদার্থ বিজ্ঞান, সাধারণ বিজ্ঞান, সামাজিক বিজ্ঞান, অংক, ধর্ম, শারীরিক শিক্ষার পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষার দু’একটি বিষয় বাধ্যতামূলক করা হবে।

সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী বছর প্রথামিকভাবে অষ্টম শ্রেণিতে কারিগরি শিক্ষা ব্যধতামূলক করা হবে। তবে এসএসসি ও এইচএসসির মত বিভাগীয়ভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে না। স্কুলে ক্লাস পরীক্ষা ও বার্ষিক পরীক্ষার মাধ্যমে তাদের মেধা যাচাই করে সনদ দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, আগামী বছর অষ্টম শ্রেণি থেকে একটি বা দুইটি বিষয় কারিগরি শিক্ষা ব্যধত্যামূলক করা হবে। বিষয়টি পাবলিক পরীক্ষায় বাধ্যতামূলক করা হবে না। ক্লাস পরীক্ষাটা বাধ্যতামূলক করা হবে। যেমন শারীরিক শিক্ষা, ক্রীড়া, কালচার, সংগীত, চিত্রকলা এগুলো যেমন আমাদের জন্য বাধ্যতামূলক কিন্তু তেমনি কারিগরি শিক্ষাও বাধ্যতামূলক করা হবে। এজন্য আমরা সব মানুষের মতামত নিতে একটি প্রস্তাবনা কপি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে। সবার মতামত দেওয়া জন্য ১৫ দিন সময় দেওয়া হবে সেই সময়ের মধ্যে এখানে সবাই মতামত প্রকাশ করতে পারবেন। সবার মতামতের ভিত্তিতে আমরা একটি বিষয় সিন্ধান্ত নেবো।

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর