শনিবার ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ৩:৫৪ এএম


অযোগ্য হতেও যোগ্যতা লাগে, অযোগ্যতার মধ্যেও অনেক শান্তি আছে

অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু

প্রকাশিত: ০০:১১, ৮ নভেম্বর ২০১৯  

১৯৮২ সাল থেকে ঢাকায় থাকি। সেই হিসেবে ঢাকায় আমার বসবাস ৩৭ বছর । ছাত্র রাজনীতির শীর্ষ পর্যায়ে (বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্ম-সম্মাদক ও সহ-সভাপতি ছিলাম) নেতৃত্বে ছিলাম। আমার বেশ কয়েকজন বন্ধু বর্তমান মন্ত্রী সভার সদস্য। এছাড়া অনেক বন্ধু বান্ধব সরকারের অনেক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে অধিষ্ঠিত আছে।

আমি বঙ্গবন্ধুর নামে আমার নিজ এলাকায় প্রতিষ্ঠিত কলেজের অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্বে আছি প্রায় বিশ বছর। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বদান্যতায় সরকারি একটি সংস্হার (শিক্ষক কর্মচারি কল্যাণ ট্রাস্টের) সচিব হিসাবে দায়িত্বে আছি প্রায় দশ বছর। এক সময় বিদেশি সংস্থার সাথে ব্যবসাও করেছি। এখনো পারিবারিক ব্যবসার সাথে সম্পৃক্ত আছি। সেই হিসাবে আয় রোজগার একবারে কম ছিল না । জীবনে যা রোজগার করেছি জনহিতকর কাজেই সিংহভাগ খরচ করেছি। এরমধ্যে আমার নিজ হাতে গড়া বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠানও রয়েছে ।
এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে আমি ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি থাকাকালীন সময়ে টিউশনি ও আমার প্রতিষ্ঠিত কোচিং সেন্টারের আয় থেকে "জাতির জনক বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট" এর নামে এক খন্ড জমিও ক্রয় করেছিলাম।

জনগণের সেবা নিয়েই ভেবেছি ঢাকায় নিজের বাড়ি কিংবা ফ্লাটের চিন্তা করি নাই যার জন্য এখনো ভাড়া বাড়িতেই থাকতে হয়। বন্ধু বান্ধব,আত্মীয়স্বজনরা জিজ্ঞেস করে যখন জানতে পারে আমার ঢাকায় নিজস্ব বাড়ি কিংবা ফ্লাট নাই তখন অনেকেই বিশ্বাস করেন না। অনেকে আবার এ নিয়ে মজাও করেন। কেউ কেউ আবার যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। ঢাকায় নিজের বাড়ি না থাকা যেন চরম অযোগ্যতা। কিন্তু আমি মনে করি এই অযোগ্যতার মধ্যেও শান্তি আছে। বাড়ি করতে না পারায় আমার নিজের মধ্যে কোন অনুসূচনা নাই। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে শুকরিয়া তিনি তো আমাকে সম্মানের সাথে রেখেছেন। আমি লক্ষ লক্ষ শিক্ষক কর্মচারীর সেবা করার সুযোগ তিনি আমাকে দিয়েছেন। এই সুযোগ ক`জনের ভাগ্যে জোটে। লেখাটি তার ফেসবুক থেকে নেওয়া হয়েছে।

সব খবর
এই বিভাগের আরো খবর